ভারতের দ্রুততম নারী অ্যাথলেট দ্যুতি চাঁদ। ছবি: সংগৃহীত

আত্মীয়ার সঙ্গে সমকামী সম্পর্ক, বিপাকে ভারতীয় এই তারকা ক্রীড়াবিদ

গত পাঁচ বছর ধরে আত্মীয়ার সঙ্গে চলছে এই সমকামী সম্পর্ক।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২০ মে ২০১৯, ১৩:০১ আপডেট: ২০ মে ২০১৯, ১৩:০১
প্রকাশিত: ২০ মে ২০১৯, ১৩:০১ আপডেট: ২০ মে ২০১৯, ১৩:০১


ভারতের দ্রুততম নারী অ্যাথলেট দ্যুতি চাঁদ। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) দ্যুতি চাঁদ, তাকে বলা হয় ভারতের দ্রুততম নারী। ২০১৮ এশিয়াডে নারীদের ১০০ মিটার ও ২০০ মিটার ইভেন্টে রুপা জেতেন তিনি। বর্তমানে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতিতে মগ্ন দ্যুতি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চ থেকেই ২০২০ টোকিও অলিম্পিকের মহড়া সারবেন ভারতীয় এই নারী অ্যাথলেট।

এই প্রস্তুতির মাঝেই শিরোনামে ওঠে এলেন দ্যুতি। যদিও দৌড়ের জন্য নয়, বরং আদর্শ জীবনসঙ্গী বেছে নেওয়ার জন্য। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি প্রকাশ্যে এনেছেন তার সমকামী সম্পর্ক। দ্য সানডে এক্সপ্রেসকে দ্যুতি জানিয়েছেন, নিজের আত্মীয়ার সঙ্গে পাঁচ বছর ধরে সমকামী সম্পর্ক রয়েছে তার।

যদিও তার সঙ্গিনীর নাম এই মুহূর্তে জানাতে ইচ্ছুক নন দ্যুতি। এ নিয়ে তার ভাষ্য, ‘গত পাঁচ বছর ধরে আমাদের গ্রামের ১৯ বছর বয়সি একটি মেয়ের সঙ্গে আমার সম্পর্ক আছে। ও ভুবনেশ্বরের একটি কলেজে বিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। ও আমার আত্মীয়া। আমি যখনই বাড়ি যাই, ওর সঙ্গে সময় কাটাই। আমি ভবিষ্যতে ওকেই বিয়ে করতে চাই।’

কিভাবে হলো সম্পর্ক জানতে চাইলে ২৩ বছর বয়সী এই নারী ক্রীড়াবিদ বলেন, ‘আমার গুণমুগ্ধ ছিল ও। প্রথমে প্রস্তাব দিয়ে ও বলেছিল, আমার সঙ্গে সারা জীবন থাকতে চায়। আমি তখন ওর বাবা-মায়ের মত জানতে চেয়েছিলাম। তারা মত দেওয়ার পরে ধীরে ধীরে আমাদের সম্পর্ক জোরদার হয়েছে।’

কেন এতদিন এই সম্পর্ক ঘোষণা করেননি? দ্যুতি বলেন, ‘খুব ভয় করত। তা ছাড়া ও তখনও প্রাপ্তবয়স্ক হয়নি। গত বছর সেপ্টেম্বরে সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয়, সমলিঙ্গের সম্পর্ক কোনো অপরাধ নয়। তার পরেই ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের এই সম্পর্কের কথা জানাই। আমি মনে করি প্রত্যেকেরই তার পছন্দের মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে থাকার স্বাধীনতা রয়েছে।’

‘আমরা দু’জনকে খুব বেশি সময় দিতে পারি না। জাতীয় শিবির, প্রতিযোগিতা নিয়ে ব্যস্ত থাকি বলে। তবে ওডিশা ফিরলে আমরা একসঙ্গে সময় কাটাই। ঘুরতেও যাই। দেশে-বিদেশে প্রতিযোগিতায় নামলে ও আমার সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করে। এই সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। অচিরেই ঘর বাঁধার ইচ্ছেও আছে আমাদের।’, যোগ করেন দ্যুতি।

ভারতের দ্রুততম নারী অ্যাথলেট দ্যুতি চাঁদ। ছবি: সংগৃহীত

এই সম্পর্ক ঘিরে তার পরিবারে যে অশান্তিও রয়েছে, তাও গোপন করেননি দ্যুতি। আত্মীয়ার সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়ে বাবা-মার বিশেষ আপত্তি না থাকলেও, দ্যুতির বড় বোন পরিবার থেকে বিতাড়ন করার হুমকি দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, জেলে পাঠানোর কথাও বলেছেন দ্যুতির বড় বোন।

এ নিয়ে দ্যুতির ভাষ্য, ‘আমার বড়দিদি সরস্বতী এই সম্পর্কের বিরোধী। আসলে উনি খুব জটিল মানসিকতার মহিলা। আমার দাদা রবীন্দ্রের স্ত্রী ওর খারাপ ব্যবহারের জন্যই বাড়ি ছেড়েছে। এখন দিদি আমাকে বলছেন, এই সমলিঙ্গ সম্পর্ক রাখলে আমি ঘরে ঢুকতে পারব না। বাবা-মা আগে আমার পাশেই ছিলেন।’

‘যে-বাড়িতে দিদি ঢুকতে দিতে চাইছেন না, তা আমার অর্থে তৈরি। বাবা-মা আজ স্বাচ্ছন্দ্যের জীবন পেয়েছেন আমার জন্যই। আর সেই বাড়ি, বাবা-মায়ের কাছ থেকে আমাকে সরিয়ে দিয়ে জেলে পাঠানোর হুমকি দিচ্ছেন নিজের দিদি! আমাকে একঘরে করছেন। কিন্তু আমি এই সম্পর্ক ভাঙব না।’, যোগ করেন দ্যুতি।

দ্যুতি আরও জানিয়েছেন, অ্যাথলেটিক্স চালিয়ে যেতে চান তিনি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ও অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জন করাই তার লক্ষ্য। একইসঙ্গে তিনি সম্পর্ক নিয়েও সতর্ক। বাংলার অ্যাথলেট পিঙ্কি প্রামাণিকের পরিণতি চান না দ্যুতি। সেই কারণেই সমকামী সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে জানিয়েছেন।

প্রিয় খেলা/রুহুল