কারণে বা অকারণে গৃহকর্তা নেহার সুলতানাসহ তার মেয়েরা শিশুটিকে বেধড়ক মারতো। ছবি :সংগৃহীত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতন, আটক ৩

দত্তক নেওয়ার কয়েক বছর পর থেকে রমজান তাকে তার বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করাতে থাকে। তার ওপর চলতে থাকে শারীরিক নির্যাতন।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ মে ২০১৯, ১২:৪৫ আপডেট: ২৪ মে ২০১৯, ১২:৪৫
প্রকাশিত: ২৪ মে ২০১৯, ১২:৪৫ আপডেট: ২৪ মে ২০১৯, ১২:৪৫


কারণে বা অকারণে গৃহকর্তা নেহার সুলতানাসহ তার মেয়েরা শিশুটিকে বেধড়ক মারতো। ছবি :সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পশ্চিম মেড্ডা এলাকায় লামিয়া (৯) নামে এক শিশু গৃহকর্মী গৃহকর্তার নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

২৩ মে, বৃহস্পতিবার বিকেলে পুলিশ স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে। প্রাথমিকভাবে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

লামিয়া জেলা শহরের গোর্কণঘাট এলাকার মৃত কুদ্দস মিয়ার মেয়ে। এই ঘটনায় ২৪ মে, শুক্রবার ভোরে গৃহকর্তাসহ তিনজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। আটকরা হলেন- গৃহকর্তা নেহার সুলতানা (৪৫), তার দুই মেয়ে রুমা আক্তার রুম্পা (২১) ও তাবাসসুম সুমাইয়া (১৫)। ঘটনার পর থেকে গৃহকর্তা রমজান মিয়া পলাতক।

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জিয়াউল হক জানান, নির্যাতনের শিকার শিশুটি দুই বছর বয়সে মা-বাবাকে হারায়। ওই সময় তাকে লালন পালনের জন্য রমজান মিয়ার কাছে দত্তক দেওয়া হয়। দত্তক নেওয়ার কয়েক বছর পর থেকে রমজান তাকে তার বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করাতে থাকে। তার ওপর চলতে থাকে শারীরিক নির্যাতন।

তিনি জানান, কারণে বা অকারণে গৃহকর্তা নেহার সুলতানাসহ তার মেয়েরা তাকে বেধড়ক মারতো। তার সারা শরীরে অসংখ্য দাগ ও ক্ষত চিহৃ রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ওই পরিবারে পাঁচজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছে।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...