নিজ নিজ স্ত্রীর সঙ্গে শোয়েব মালিক, সরফরাজ আহমেদ ও মোহাম্মদ আমির। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের স্ত্রী-সন্তান!

উল্টো পথে হাঁটছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৪ মে ২০১৯, ১৭:০৫ আপডেট: ২৪ মে ২০১৯, ১৭:০৫
প্রকাশিত: ২৪ মে ২০১৯, ১৭:০৫ আপডেট: ২৪ মে ২০১৯, ১৭:০৫


নিজ নিজ স্ত্রীর সঙ্গে শোয়েব মালিক, সরফরাজ আহমেদ ও মোহাম্মদ আমির। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) আর মাত্র ছয় দিনের অপেক্ষা। এর পরই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট আসর ওয়ানডে বিশ্বকাপ। চলতি বছরের ৩০ মে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাঠে পর্দা উঠছে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে এবারের বিশ্বকাপ। অর্থাৎ প্রতিটি দল গ্রুপ পর্বে একে অপরের মুখোমুখি হবে।

তাতে প্রায় দেড় মাসের মতো ইংল্যান্ডে অবস্থান করতে হবে অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে। লম্বা সময়ে ক্রিকেটারদের যেন গৃহকাতরতা পেয়ে না বসে, সে জন্য স্ত্রী-সন্তানদের সঙ্গে রাখার অনুমতি দিচ্ছে একাধিক ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু উল্টো পথে হাঁটছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপ চলাকালীন টিম হোটেলে ক্রিকেটারদের স্ত্রী-সন্তানদের নিষিদ্ধ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

সম্প্রতি নিয়ম-কানুনে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। বোর্ডের সেই নতুন নিয়মে নিষিদ্ধ করা হয়েছে খেলোয়াড়দের স্ত্রী-সন্তানদের উপস্থিতি। অর্থাৎ খেলা চলাকালীন টিম হোটেলে পরিবারকে রাখা সম্পূর্ণ নিষেধ করা হয়েছে। তবে ক্ষেত্র বিশেষে নিয়ম শিথিলও করা সম্ভব। যেমন বোর্ডের বিশেষ অনুমতি নিয়ে বিশ্বকাপ চলাকালীন স্ত্রীকে রুমে রাখতে পারবেন হারিস সোহেল।

কোনো ক্রিকেটার যদি ইংল্যান্ডে তার পরিবারের সদস্যদের রাখতে চায় সে ক্ষেত্রে সব খরচ ওই ক্রিকেটারকে বহন করতে হবে। তবে সেখানেও শর্ত জুড়ে দিয়েছে পিসিবি। ক্রিকেটাররা যে হোটেলে থাকবেন সেখানে একই রুমে থাকতে পারবেন না তাদের পরিবারের কেউ।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজ চলাকালীন স্ত্রী-সন্তানকে পাশে রাখার অনুমতি পেয়েছিলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। কিন্তু সেই সিরিজে ৪-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে সরফরাজ আহমেদের দল। সেই ব্যর্থতার খেসারত হিসেবে বিশ্বকাপে স্ত্রী-সন্তানদের পাশে পাবেন না ক্রিকেটাররা।

প্রিয় খেলা/আজাদ চৌধুরী