ট্রেনটিতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকলেও ভাড়া একতা ও দ্রুতযানের সমান রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

দুপুর ১টা ৩০মিনিটে নতুন এ আন্তনগর ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেনযাত্রা দিয়ে শুরু হয় বিরতিহীন পঞ্চগড় টু ঢাকা রেলপথে সরাসরি ট্রেন যোগাযোগ।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৫ মে ২০১৯, ১৭:১০ আপডেট: ২৫ মে ২০১৯, ১৭:১০
প্রকাশিত: ২৫ মে ২০১৯, ১৭:১০ আপডেট: ২৫ মে ২০১৯, ১৭:১০


ট্রেনটিতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকলেও ভাড়া একতা ও দ্রুতযানের সমান রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) দেশের সর্বোচ্চ দূরত্বের রেলপথে চালু হলো ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ নামে নতুন নন-স্টপ (বিরতিহীন) ট্রেন সার্ভিস। 

২৫ মে, শনিবার দুপুর ১টার দিকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বহুল প্রত্যাশিত এ ট্রেন সার্ভিস চালু হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে পঞ্চগড়বাসী।

দুপুর ১টা ৩০মিনিটে নতুন এ আন্তনগর ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেনযাত্রা দিয়ে শুরু হয় বিরতিহীন পঞ্চগড় টু ঢাকা রেলপথে সরাসরি ট্রেন যোগাযোগ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে পঞ্চগড়বাসীর বহুল প্রত্যাশিত ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি হুইসেল বাজিয়ে ও সবুজ পতাকার সংকেত দেখিয়ে উদ্বোধন ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে স্টেশনের নতুন নাম ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন পঞ্চগড়’ ঘোষণা করেন। পঞ্চগড়ে এর নামফলক উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন।

এ উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন পঞ্চগড় চত্বরে ভিডিও কনফারেন্সের আয়োজন করে রেলওয়ে বিভাগ।

এ সময় ভিডিও কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন, পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের জিএম খন্দকার শহীদুল ইসলাম প্রমুখ।

পরে রেলপথমন্ত্রী নন-স্টপ (বিরতিহীন) ট্রেন ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ করেই ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-পঞ্চগড় রেলপথে প্রথম বারের মতো দ্রুত গতির পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেনটি ৫৯৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে ১০ ঘণ্টায়। ট্রেনটি প্রতিদিন ১২টা ১৫ মিনিটে পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গিয়ে রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাবে। আবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে পঞ্চগড় পৌঁছাবে। যাত্রাপথে ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, পার্বতীপুর ও ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে থামবে। ঢাকা থেকে আসার পথেও এসব স্টেশনে থামবে।

এ ট্রেনটিতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকলেও ভাড়া একতা ও দ্রুতযানের সমান রাখা হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...