ভারতের বড় পর্দা ও ছোট পর্দার তারকারা। ছবি: সংগৃহীত

লোকসভায় রূপালি পর্দার তারকাদের মধ্যে কে জিতলেন, কে হারলেন?

এইসব তারাকাদের মধ্যে রাজনীতেতে অনেকে এসেছেন বহু বছর আগে আবার অনেক একদম নতুন। কেউ বলিউড তো কেউ ভোজপুরি ছবির সুপারস্টার। তবে সব তারকারাই কিন্তু জয় পাননি।

আশরাফ ইসলাম
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ মে ২০১৯, ১৫:৫৯ আপডেট: ২৬ মে ২০১৯, ১৫:৫৯
প্রকাশিত: ২৬ মে ২০১৯, ১৫:৫৯ আপডেট: ২৬ মে ২০১৯, ১৫:৫৯


ভারতের বড় পর্দা ও ছোট পর্দার তারকারা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ভারতের লোকসভা নির্বাচনে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আসনের ব্যাপারে নিশ্চিন্ত থাকতে বড় পর্দা কিংবা ছোট পর্দার তারকাদের ওপর নির্ভর করেছে বড় রাজনৈতিক দলগুলো। যে আসনগুলোতে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের দিয়ে জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা কম, সেসব আসনে জয় পাবার জন্য আশ্রয় নেওয়া হয় তারকাদের।

এইসব তারাকাদের মধ্যে রাজনীতেতে অনেকে এসেছেন বহু বছর আগে আবার অনেক একদমই নতুন। কেউ বলিউড তো কেউ ভোজপুরি ছবির সুপারস্টার। তবে সব তারকারাই কিন্তু জয় পাননি। চলুন দেখে নেওয়া যাক কোন সব তারকা এবারের নির্বাচনে জয় লাভ করেছেন। 

স্মৃতি ইরানি

আমেথিতে বিজেপি প্রার্থী স্মৃতি ইরানির কাছে হেরে গেছেন কংগ্রেস দলের প্রধান রাহুল গান্ধী। এক সময়ের ছোট পর্দায়ের এই তারকার জয়কে অনেকে অবিশ্বাস্য বলে ভাবছেন।

সানি দেওল

সানি দেওলের কোনো ছবি যদি ভারতের কোনো যায়গায় নাও চলে সমস্যা নেই সেই সিনেমা পাঞ্জাবে ঠিকই চলে। প্রথমবার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেই বাজিমাত করলেন একসময়ের বলিউডের এই সুপারস্টার। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) হয়ে পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে জয়ী হয়েছেন তিনি।

উর্মিলা মাতন্ডকর

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী উর্মিলা মাতন্ডকর। চলতি বছরের মার্চে কংগ্রেসের রাজনীতিতে যোগ দেন। উত্তর মুম্বাইয়ে কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন তিনি। নির্বাচনি প্রচারে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিলেন এককালের হিট নায়িকা উর্মিলা। কিন্তু জিততে আর পারেননি।

মিমি চক্রবর্তী

টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। দুই লাখ ৯৫ হাজার ২৩৯ ভোটে হারিয়ে দিয়েছেন নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরাকে। 

নুসরাত জাহান

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় নায়িকা নুসরাত জাহান । অভিনয় দিয়ে কেড়েছেন হাজারো মানুষের হৃদয়। তবে এবার রাজনীতির মাঠে নেমেও বাজিমাত করলেন। সর্বোচ্চ ভোটের ব্যবধানে জিতে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।পশ্চিমবঙ্গের অনেক আসনে যখন নরেন্দ্র মোদির পক্ষে ভোটবাক্স ভরিয়েছেন ভোটাররা, সেখানে সব হিসাব পেছনে ফেলে তিন লাখ ৫০ হাজার ৩৬৯ ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন নুসরত। 

দেব

ঘাটাল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন টলিউডের নায়ক দেব। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার ঘাটাল থেকে তিনি জয় লাভ করেছেন। দেবের প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের সঙ্গেই মূলত। দেবের জয়কে সৌজন্যের জয় হিসেবেই দেখছে রাজনৈতিক মহল। এক লাখ ০৭ হাজার ৯৭৩ ভোটে জয় পেয়েছেন তিনি।

প্রকাশ রাজ

ভোটের ফল তার গালে একটা জোরালো চড় দিয়েছে; বেঙ্গালুরু কেন্দ্রীয় বিজেপি প্রার্থীর থেকে পিছিয়ে পড়ে এ কথা বলেন বলিউডের অভিনেতা তথা নির্দলীয় প্রার্থী প্রকাশ রাজ। তিনি বলেছেন, জয়ী হতে না পারলেও ধর্মনিরপেক্ষ ভারত গড়ার জন্য লড়াই চালিয়ে যাবেন।

শত্রুঘ্ন সিনহা

এ বছর ভোটের আগে দলবদলে বিজেপি থেকে কংগ্রেসে গিয়েছিলেন অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা। সিদ্ধান্ত যে তার ঠিক ছিল না, তা অভিনেতার কেন্দ্র পাটনা সাহিবের ফলাফলই বলছে।

হেমা মালিনি

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে অভিনেত্রী থেকে রাজনীতিতে যোগ দেওয়া হেমা মালিনি উত্তর প্রদেশের মাথুরা থেকে বিজয়ী হয়েছেন। নিজ আসনে ত্রিপক্ষীয় লড়াইয়ে বিজেপির এই প্রার্থীকে আরএলডির কুনওয়ার নরেন্দ্র সিং ও কংগ্রেসের মহেশ পাঠকের বিরুদ্ধে প্রতিন্দ্বিতা করতে হয়েছে।

মুনমুন সেন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার দ্বিতীয় বৃহওম শহর আসানসোল। তৃণমূল কংগ্রেসের তারকা প্রার্থী মুনমুন সেন এখান থেকেই প্রার্থী হয়েছিলেন। খবর হলো, আসানসোলে ৬৫ হাজার ভোটে জিতেছেন বিজেপির তারকা প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়। সেই সঙ্গে হেরেছেন মুনমুন।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...