তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

অফিসে তালা মারার মাধ্যমেই বোঝা যায় বিএনপির মধ্যে চরম বিশৃঙ্খলা

২০১৪ সালে নির্বাচন তারা বর্জন করে গণতন্ত্রের অভিযাত্রাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করেছিল।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯, ২০:৪৬ আপডেট: ১১ জুন ২০১৯, ২০:৪৬
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯, ২০:৪৬ আপডেট: ১১ জুন ২০১৯, ২০:৪৬


তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) বিএনপির মধ্যে যে অস্থিরতা, সেটির বহিঃপ্রকাশ হচ্ছে তাদের কর্মীরা তাদের অফিসে তালা মেরে দিয়েছেন—এমন মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

১১ জুন, মঙ্গলবার ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির নিয়মিত সভার শুরুতে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘যারা নিজের অফিসে নিজেরা তালা মারে, তারা কীভাবে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করবে, কিংবা সরকারের বিরুদ্ধে বৃহত্তর ঐক্য করবে, এটি আমার জানা নেই। বিএনপি অফিসে তালা মারার মধ্যে দিয়ে এটিই প্রমাণ হয়, বিএনপি প্রচণ্ড বিশৃঙ্খলা ও নেতৃত্বহীনতার মধ্য দিয়ে চলছে।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘১/১১-এর কুশীলবদের সাথে আজকে বিএনপিও হাত মিলিয়েছে অনেক ক্ষেত্রে। সেই কারণে ২০১৪ সালে নির্বাচন তারা বর্জন করে গণতন্ত্রের অভিযাত্রাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করেছিল এবং বিগত ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেও অংশগ্রহণ করে নাই। তার উদ্দেশ্য ছিল নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা। তাই আজকে গণতন্ত্র মুক্তি পেল শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।

মন্ত্রী বলেন, ‘২০০৮ সালের ১১ জুন, এদিন শুধু জননেত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিলাভ করেননি, এদিন গণতন্ত্র মুক্তি লাভ করেছিল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে বাধ্য হয়ে শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিয়েছিল অগণতান্ত্রিক সরকার। আমাদের আন্দোলনের কারণে প্রকৃতপক্ষে বেগম খালেদা জিয়াও মুক্তি লাভ করেছিলেন। দুঃখজনক হলেও সত্য যে আন্দোলনের প্রেক্ষিতে বেগম জিয়াও মুক্তি লাভ করেছেন।’

তখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা শুধু শেখ হাসিনার মুক্তির জন্য লড়াই করেছেন তা নয়; মন্ত্রী বলেন, ‘আজকের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস। ২০০৮ সালের এই দিনে দীর্ঘ ১১ মাস কারাভোগ করার পর তিনি মুক্তি লাভ করেছিলেন।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...