চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ছবি: সংগৃহীত

ভারত-বধের জন্য পাকিস্তানকে ওয়াকার ইউনুসের ‘টোটকা’

পাকিস্তানের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স হতাশাজনক হলেও এই দলটি নিয়ে আশাবাদী ওয়াকার।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০১৯, ১৭:২৯ আপডেট: ১৪ জুন ২০১৯, ১৭:৩২
প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০১৯, ১৭:২৯ আপডেট: ১৪ জুন ২০১৯, ১৭:৩২


চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) যেকোনো ইস্যুতে দুই দলের অবস্থান অবস্থান দুই মেরুতে। বিশ্বকাপে জয় পরাজয়ের হিসেবেও সেটা লক্ষ্যণীয়। ইংল্যান্ডের মাটিতে চলমান বিশ্বকাপের এবারের আসরে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচের মধ্যে দুটিতেই জয় তুলে নেয় ভারত। বাকিটি বৃষ্টিতে ভেসে যায়। অন্যদিকে হারের বৃত্তে ঘুরপাক খাচ্ছে পাকিস্তান। টানা ১৪টি ওয়ানডে পরাজ্যের পর ইংল্যান্ডকে হারিয়ে পরাজয়ের বৃত্ত ভেঙেছিল সরফরাজ আহমেদের দল। কিন্তু নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ফের অসহায় আত্মসমর্পণ করে তারা।

অজিদের বিপক্ষে হারের দগদগে ক্ষত নিয়ে বিশ্বকাপে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে পাকিস্তান। আগামী ১৬ জুন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মুখোমুখি হবে দুদল। এই ম্যাচে মাঠে নামার আগে ভারতকে হারানোর টোটকা দিলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি পেসার ওয়াকার ইউনুস। বিশ্বকাপে চার ম্যাচে মাত্র একটি জয় পয়েন্ট তালিকার তলানিতে থাকা পাকিস্তানকে ‘এ’ প্লাস ক্রিকেট খেলার তাগিদ দেন তিনি।

ওয়াকার ইউনুসের বিশ্বাস, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে হারিয়ে জয়ের খরা কাটাবে পাকিস্তান। দেশটির এই সাবেক কোচ জানান, ভারত আগে ব্যাটিং করলে দ্রুত তাদের উইকেট নিতে হবে। তা হলে সাফল্য পেতে পারে পাকিস্তান। অন্যদিকে পাকিস্তান আগে ব্যাটিং করলে উদ্বোধনী জুটিতে দারুণ শুরু করতে হবে।

পাকিস্তানের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স হতাশাজনক হলেও এই দলটি নিয়ে আশাবাদী ওয়াকার। তার ভাষ্য, ‘আমি আশা করি ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তান তাদের সেরাটা দেবে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দেখিয়েছে তারা কতটা ভালো দল। এবার বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত আমি দেখেছি, যদি দ্রুত উইকেট না নেওয়া যায় তা হলে বিপদ। নতুন বল খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং এই আসরে প্রথম ১০ ওভার ওপেনাররা খুব সতর্ক থাকেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা হয়তো ভারতকে পুরোপুরি চেপে ধরতে পারবে না, কিন্তু অনেক আকর্ষণীয় খেলবে। যদি শুরুতেই উইকেট না হারায় তা হলে কাজটা সহজ হবে। কারণ বল সুইং করে না এবং ব্যাটিংটাও সহজ হবে।’

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ছয়বার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান। কিন্তু কোনোবার জয়ের স্বাদ পায়নি তারা। এবার সেই জয়খরা কাটাতে মরিয়া সরফরাজের দল। এক্ষেত্রে তাদের অনুপ্রেরণা দেবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সর্বশেষ আসরের ফাইনালে ভারতকে হারানোর সুখস্মৃতি। ২০১৭ সালে লন্ডনের ওভালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারতকে ১৮০ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছিল সরফরাজ আহমেদের দল।

প্রিয় খেলা/কামরুল