৯৭৩ জন চিকিৎসক পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গে ৯৭৩ চিকিৎসকের পদত্যাগ

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যাকে তার বক্তব্যের কারণে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন থেকে পিছু হঠবেন না আন্দোলনকারীরা।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৫ জুন ২০১৯, ১৬:৩৬ আপডেট: ১৫ জুন ২০১৯, ১৬:৩৬
প্রকাশিত: ১৫ জুন ২০১৯, ১৬:৩৬ আপডেট: ১৫ জুন ২০১৯, ১৬:৩৬


৯৭৩ জন চিকিৎসক পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কলকাতার নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (এনআরএস) গত ১০ জুন এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে জুনিয়র চিকিৎসকদের মারধোরের ঘটনায় পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গে বিভিন্ন হাসপাতালের ৯৭৩ জন চিকিৎসক দায়িত্ব থেকে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গের জুনিয়র চিকিৎসকদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এনআরএস হাসপাতালে এসে তার বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে।

জানা যায়, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, এনআরএসে বহিরাগতরা ঝামেলা পাকাচ্ছে এবং চিকিৎসকরা পদবী দেখে চিকিৎসা করান। মূলত মুখ্যমন্ত্রীকে এই বক্তব্যের নিরিখে তার ক্ষমা চাইতে হবে বলে যেমন অনড় রয়েছেন জুনিয়র চিকিৎসকরা, তেমনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও অনড় তার নিজের অবস্থানে। এই পরিস্থিতিতে কবে সমাধান পথ মিলবে তার কোনো হদিস নেই।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গে জুনিয়র চিকিৎসকদের এই আন্দোলনে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে কার্যত গোটা দেশ। এমন কথাও বলা হচ্ছে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় সমাধানের পথ না বেরিয়ে এলে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান ধর্মঘট শুরু করবেন চিকিৎসকরা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় কথা বলতে যান রাজ্যের প্রবীণ চিকিৎসকদের একাংশ। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য প্রশাসনিক ভবন নবান্নে গিয়ে তারা বিষয়টির সমাধানের পথ বের করার চেষ্টা করলেও নিজের অবস্থানে অনড় থাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অন্যদিকে জুনিয়র চিকিৎসকরাও তাদের অবস্থানে অনড় থেকে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার বক্তব্যের কারণে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন থেকে পিছু হঠবেন না তারা। এখনও পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের কলকাতাসহ বিভিন্ন জেলার হাসপাতালে চিকিৎসকদের পদত্যাগ সংখ্যা ৯৭৩ জনে পৌঁছেছে। ফলে বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য পরিষেবার সংকট।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল