প্রতীকী ছবি

বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে, কেড়ে নেওয়া হলো চিকিৎসকের লাইসেন্স!

পেশার বাইরে ব্যক্তিগত জীবনে তার পছন্দের পোশাকের জন্য কেন তার লাইসেন্স কেড়ে নেওয়া হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ন্যাং মে স্যান।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০১৯, ০৯:৫৫ আপডেট: ১৭ জুন ২০১৯, ০৯:৫৫
প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০১৯, ০৯:৫৫ আপডেট: ১৭ জুন ২০১৯, ০৯:৫৫


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) পোশাক মানুষের জীবনযাপনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। সেই পোশাক কখনও কখনও আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলতেও সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এক কথায় বলতে গেলে পোশাক মানুষকে অন্যসব প্রাণী থেকেও ভিন্নতায় পৌঁছে দিয়েছে। আবার কখনও কখনও সেই পোশাকই মানুষকে অন্যের কাছে হেয় করে।

সম্প্রতি তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে মিয়ানমারে। সেখানকার এক চিকিৎসক বিকিনি পরে ছবি তুলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে চাকরি হারাতে বসেছেন।

জানা গেছে, নিজের বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট করার ‘অপরাধে’ এক চিকিৎসকের লাইসেন্স কেড়ে নেওয়া হয়েছে! মিয়ানমারের ২৯ বছর বয়সী ন্যাং মে স্যান নামের ওই চিকিৎসক পাঁচ বছর ধরে দেশটিতে ডাক্তারি করছেন। পেশায় চিকিৎসক হলেও ফেসবুক-সহ সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে নিজের নানা রকমের ছবি পোস্ট করতে ভালবাসেন ন্যাং স্যান। আর না বললেই নয়, তার ছবিগুলি বেশ সাহসী বা বোল্ড। কখনও স্বচ্ছ পোশাকে, তো কখনও সুইমিং কস্টিউমে বা অন্তর্বাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেকে সামনে এনেছেন তিনি। এবারও তেমনভাবেই নিজের বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন ন্যাং স্যান। আর তাতেই চটেছে সে দেশের সরকার। শাস্তি হিসেবে কেড়ে নেওয়া হয়েছে তার লাইসেন্স।

অবশ্য ন্যাং স্যানের মতে, তিনি যখন রোগী দেখেন, তখন মোটেই খোলামেলা পোশাক পরেন না। তাই পেশার বাইরে ব্যক্তিগত জীবনে তার পছন্দের পোশাকের জন্য কেন তার লাইসেন্স কেড়ে নেওয়া হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। ন্যাং স্যানের মতে, তার ব্যক্তিগত স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে।

এদিকে মিয়ানমার মেডিক্যাল কাউন্সিলের পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে ন্যাং স্যানকে জানানো হয়, তার পোশাক দেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের বিরোধী। তাই তার লাইসেন্স বাতিল করা হলো। তবে দেশের মেডিক্যাল কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্তে একটুও বিচলিত নন এই চিকিৎসক। উল্টো মেডিক্যাল কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছেন তিনি।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


loading ...