গ্রাফিক্স: প্রিয়.কম

শুধু ব্যালেন্স চেক নয়, পিন পরিবর্তনসহ অন্যান্য সেবাতেও গুণতে হবে অর্থ

বিটিআরসির নির্দেশনার ৬ নম্বর ক্রমিক অনুযায়ী, আর্থিক লেনদেন ছাড়া অন্য কাজের জন্য প্রতিবার ৪০ পয়সা দিতে হবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানকে।

রাকিবুল হাসান
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০১৯, ১৯:৪৭ আপডেট: ১৭ জুন ২০১৯, ১৯:৪৭
প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০১৯, ১৯:৪৭ আপডেট: ১৭ জুন ২০১৯, ১৯:৪৭


গ্রাফিক্স: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) ইউএসএসডি বা মোবাইলে নির্দিষ্ট কোড ডায়াল করে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের কোনো সেবা গ্রহণ করলে গুণতে হবে ৪০ পয়সার বেশি অর্থ।

সম্প্রতি এই সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। তবে এখনই এই নির্দেশনা কার্যকর হচ্ছে না।

বিটিআরসির নির্দেশনার ৬ নম্বর ক্রমিক অনুযায়ী, আর্থিক লেনদেন ছাড়া অন্য কাজের জন্য প্রতিবার ৪০ পয়সা দিতে হবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানকে।

অর্থাৎ বিকাশ, রকেট বা এই জাতীয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গ্রহণকারীরা যখন অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স দেখবেন, স্টেটমেন্ট দেখবেন, পিন পরিবর্তন করবেন, এমএনপি সেবার তথ্য আপডেট করবেন বা এই সংক্রান্ত সেবা গ্রহণ করবেন, তখন প্রতি সফল সেশনের জন্য গুণতে হবে ৪০ পয়সা (ভ্যাট ছাড়া)। তবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে মোবাইলে এয়ারটাইম এই নির্দেশনার অন্তর্ভুক্ত নয়।

এ ছাড়া ৯০ সেকেন্ডের মধ্যে একটি আর্থিক লেনদেন সম্পন্ন হলে মুঠোফোন অপারেটররা ৮৫ পয়সা (ভ্যাট ছাড়া) পাবে।

নতুন এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চাইলে বিকাশের কমিউনিকেশন বিভাগের প্রধান শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম প্রিয়.কমকে বলেন, ‘বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা, বিটিআরসির ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমরা বিষয়টি জেনেছি। আমরা এখন পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা পাইনি। এ ছাড়া আমরা এখনো এ ধরনের কোনো চার্জ বৃদ্ধি করিনি।’

এদিকে বিটিআরসির এমন নির্দেশনাকে স্বাগত জানিয়েছে মোবাইল অপারেটর রবি। এক বিবৃতিতে অপারেটরটির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বলেন, ‘মোবাইল আর্থিক সেবা (এমএফএস) নিয়ে বিটিআরসির সমন্বিত নির্দেশনাকে আমরা স্বাগত জানাই। গত চার বছর ধরে বাংলাদেশ ব্যাংক, বিটিআরসি, মোবাইল অপারেটর এবং এমএফএস সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের দীর্ঘ আলোচনার পর সবার ঐক্যমত্যের ভিত্তিতে দীর্ঘদিনের দাবি সেশন-ভিত্তিক চার্জ শেষ পর্যন্ত বাস্তবায়িত হচ্ছে।’

বিবৃতিতে তিনি দাবি করেন, ‘এই চার্জ মোবাইল অপারেটরকে প্রদান করবে সংশ্লিষ্ট এমএফএস সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান, গ্রাহকদের ওপর এ চার্জ বর্তাবে না। এমএফএস খাতের বিকাশের মূল হাতিয়ার দেশজুড়ে বিস্তৃত মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক। এই নির্দেশনাটির মাধ্যমে ব্যয়বহুল এই অবকাঠোমার গ্রহণযোগ্য একটি আর্থিক প্রবাহ নিশ্চিত হয়েছে।’

প্রিয় প্রযুক্তি/রিমন