সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত

ভুয়া নথি জমা দেওয়ার মামলা থেকে রেহাই পেলেন সালমান

এই মামলায় যোধপুর আদালত সালমানকে রেহাই দিয়ে জানায়, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ভুয়া নথি জমা দেননি অভিনেতা।

শামীমা সীমা
সহ সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৫২ আপডেট: ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৫৬
প্রকাশিত: ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৫২ আপডেট: ১৮ জুন ২০১৯, ১৭:৫৬


সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) গাড়ি চাপা দিয়ে ফুটপাতে ঘুমিয়ে থাকা মানুষ হত্যার দায় থেকে অনেক আগেই অব্যাহতি পেয়েছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। তবে ২১ বছর আগে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার দায়ে গতবছর এই মামলায় জেল হয় নায়কের। মুচলেকা ও জরিমানা দিয়ে একদিন জেল হাজতে থাকার পর জামিনে মুক্ত হন সালমান।

এই মামলার জন্য এখনো সালমানকে হাজির হতে হয় আদালত প্রাঙ্গণে। তবে এবার যোধপুরের দায়রা আদালত তাকে একটি মামলা থেকে রেহাই দিয়েছে। কোর্টে সালমান বলেছিলেন, যে বন্দুক দিয়ে হরিণ শিকার করেছিলেন তার লাইসেন্স তিনি হারিয়ে ফেলেছেন। কিন্তু আসলে তিনি সেই সময়ে লাইসেন্স নবায়ন করতে পাঠিয়েছিলেন।

সালমান খান। ছবি: সংগৃহীত

সালমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি বন্দুকের লাইসেন্সের ভুয়া কাগজ জমা দিয়েছিলেন। সেখানে বলা হয়েছিল, লাইসেন্স নবায়নের সময় ওই কাগজ হারিয়ে ফেলেছিলেন সালমান। এই মামলায় যোধপুর আদালত সালমানকে রেহাই দিয়ে জানায়, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ভুয়া নথি জমা দেননি অভিনেতা।

সালমানের আইনজীবী হস্তিমল সরস্বত জানিয়েছেন, কৃষ্ণসার হরিণ শিকার কাণ্ডে সালমান কোনো ভুল তথ্য পেশ করেননি। এই মামলায় সালমানের আইনজীবী আরও জানান, সালমান যে ভুল নথি দিয়েছেন তা প্রমাণ করতে পারেননি সালমানের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো আইনজীবী। তাই এ বিষয়ে নতুন কোনো অভিযোগ পত্র আর জমা দেওয়া উচিত নয়। নতুন করে এই মামলায় কোনো অভিযোগ দায়ের হবে না বলে এদিন জানিয়ে দিল সিজেএএম আদালত।

সালমানের সঙ্গে একই মামলায় জড়িয়ে পড়েন সাইফ আলি খান, টাবু, নীলম, সোনালি বেন্দ্রে। ছবি: সংগৃহীত

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমার শুটিং চলাকালে কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করায় সালমানের নামে যোধপুরের কোঙ্কনি গ্রামে তিনটি মামলা দায়ের হয়। সালমানের সঙ্গে একই মামলায় জড়িয়ে পড়েন ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমার সহ অভিনেতা সাইফ আলি খান, টাবু, নীলম, সোনালি বেন্দ্রে।

প্রিয় বিনোদন/কামরুল