২০১৩ সালের পর থেকেই জাতীয় দলে অনিয়মিত হয়ে পড়েন যুবরাজ সিং। ছবি: সংগৃহীত

বিদেশি লিগে খেলতেই অবসর নিয়েছেন যুবরাজ!

ধারণা করা হচ্ছিল, অনেকটা বাধ্য হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৯ জুন ২০১৯, ২২:০৮ আপডেট: ১৯ জুন ২০১৯, ২২:০৮
প্রকাশিত: ১৯ জুন ২০১৯, ২২:০৮ আপডেট: ১৯ জুন ২০১৯, ২২:০৮


২০১৩ সালের পর থেকেই জাতীয় দলে অনিয়মিত হয়ে পড়েন যুবরাজ সিং। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ভক্ত-সমর্থক থেকে শুরু করে ক্রিকেটপ্রেমী, সবার নজর এখন ইংল্যান্ডে। চলমান ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ নিয়েই এই মুহূর্তে বুঁদ হয়ে রয়েছে ক্রিকেট-বিশ্ব। এরই মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠেন যুবরাজ সিং। গেল ১০ জুন হঠাৎ করেই সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন ভারতের এই তারকা ক্রিকেটার।

২০১৩ সালের পর থেকেই জাতীয় দলে অনিয়মিত হয়ে পড়েন যুবরাজ সিং। ২০১৭ সালে আবারও জাতীয় দলে ফিরেছিলেন তিনি। কিন্তু নিয়মিত হতে পারেননি। তাই ধারণা করা হচ্ছিল, অনেকটা বাধ্য হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

এবার জানা গেল, বিদেশি লিগ খেলার আগ্রহ থেকেই বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) সঙ্গে ঝুলে থাকা সম্পর্কটা ছিন্ন করেছেন ২০১১ সালে ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম এই নায়ক। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম পিটিআই জানিয়েছে, বিদেশি লিগে খেলার জন্য ইতোমধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছেন তিনি।

পিটিআই দাবি করছে, বিদেশি লিগে খেলতেই যে বিসিসিআইয়ের সঙ্গে যুবরাজ সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন সেটা তার আবেদনে স্পষ্ট হয়েছে। কেননা ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী, বোর্ডের তালিকাভুক্ত ক্রিকেটার হলে কোনো বিদেশি লিগে খেলা যাবেনা। ওদিকে জাতীয় দলের দরজাটাও অনেক আগেই বন্ধ হয়ে গেছে। তাই বাধ্য হয়ে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ২০১৭ সালের পর থেকে জাতীয় দলের বাইরে থাকা যুবরাজ। এমনটাই দাবি পিটিআইয়ের।

যেকোনো মুহূর্তে অবসরের ঘোষণা দেবেন যুবরাজ—এটা অনেকটা অনুমেয় ছিল। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর্দা ওঠার আগেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন ২০১১ সালে ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম এই নায়ক। কিন্তু যুবরাজের অবসরের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার পরই নড়েচড়ে বসে ভারতের ক্রিকেট অঙ্গন।

আজ থেকে প্রায় দুই বছর আগে জাতীয় দলের জার্সিতে সর্বশেষ ম্যাচ খেলেছেন যুবরাজ। ২০১৭ সালের জুনে উইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ বারের মতো জাতীয় দলের জার্সিতে দেখা গেছে তাকে। চলমান ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে আবারও জাতীয় দলে ফেরার চেষ্টা করেছিলেন ক্যান্সারজয়ী এই ক্রিকেটার। কিন্তু তাতেও সাফল্য পাননি।

অবসরের আগেই অবশ্য বিদেশি লিগে খেলতে যুবরাজের আগ্রহের খবর প্রকাশ করেছিল ভারতীয় গণমাধ্যমা। তখন জানা গিয়েছিল, কয়েকটি বিদেশি টুর্নামেন্টে যুবরাজের খেলার ব্যাপারটি প্রায় চূড়ান্ত। অপেক্ষা কেবল বিসিসিআইয়ের অনুমতি। আর বোর্ডের অনুমতি পাওয়ার প্রথম শর্তই ছিল জাতীয় দলের জার্সিরে মাঠে নামার মায়া ত্যাগ করা। শেষ পর্যন্ত সেটাকেই বেছে নিয়েছেন যুবরাজ।

অবসর পরবর্তী জীবনটা টি-টোয়েন্টি লিগ খেলে উপভোগ করতে চাইছেন যুবরাজ। তার ভাষ্য, ‘আমি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলতে চাই। এ পর্যায়ে এসে আমি কেবল বিনোদনের জন্য ক্রিকেট খেলতে পারি, আমি সামনে এগোতে চাই আর জীবনটা উপভোগ করতে চাই।’

প্রিয় খেলা/কামরুল