বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হওয়া ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ছবি: সংগৃহীত

ছাত্রদলের দুপক্ষের মারামারি, সিসি ক্যামেরা ভাঙচুর

কার্যালয়ের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা ছাত্রদলের বেশ কিছু নেতা-কর্মীকে ধাওয়া দেন ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের একাংশ।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯, ১৫:১৩ আপডেট: ২৫ জুন ২০১৯, ১৫:১৩
প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯, ১৫:১৩ আপডেট: ২৫ জুন ২০১৯, ১৫:১৩


বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হওয়া ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সদস্য পদের বয়সসীমা শিথিল ও ১২ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের একাংশ।

২৫ জুন, মঙ্গলবার বেলা ১২টায় কাকরাইলের স্কাউট ভবনের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে বহিষ্কৃত ছাত্রনেতাদের নেতৃত্বে বিক্ষুব্ধরা বিএনপি কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয়। ওই সময়ে কার্যালয়ের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা ছাত্রদলের বেশ কিছু নেতা-কর্মীকে ধাওয়া দেন তারা। কার্যালয়ে নিচের শাটার ও গেইটে লাথি মারেন বিক্ষুব্ধরা। এ সময় বেশকিছু চেয়ার ছুড়ে মারার ঘটনা ঘটে এবং বাইরে থাকা কার্যালয়ের নিরাপত্তায় ব্যবহত সিসি ক্যামেরা ভেঙে যায়। বেশকয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন।

এদিকে কার্যালয়ের নিচে প্রধান ফটকের সামনে নিরাপত্তা কর্মীর টেবিল ভাঙা অবস্থায় রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। বিক্ষুব্ধরা নিরাপত্তাকর্মীকে গেইটের বাইরে বের করে দেয়।

ছাত্রনেতারা কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে বসে পড়ে থেমে থেমে ‘সিন্ডিকেটের দালালদের আস্তানা ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও’, ‘সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ডাইরেক্ট অ্যাকশন, অ্যাকশন’ ‘সিন্ডিকেটের দেওয়া নির্বাচন মানি না, মানব না’ –ইত্যাদি শ্লোগান দেন তারা।

গত ৩ জুন বিএনপি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ছাত্র দলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দিয়ে কাউন্সিলে প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে ২০০০ সালের পরের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার শর্ত আরোপ করা হয়।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল