বনানীর রেইনট্রি হোটেল। ছবি: সংগৃহীত

বনানীতে হোটেলে ধর্ষণ: পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২৫ জুলাই

এর আগে ২০১৭ সালের ১২ জুন মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তত হওয়ায় সিএমএম আদালত থেকে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এ বদলি করা হয়।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯, ১৮:২২ আপডেট: ২৫ জুন ২০১৯, ১৮:২২
প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯, ১৮:২২ আপডেট: ২৫ জুন ২০১৯, ১৮:২২


বনানীর রেইনট্রি হোটেল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ মামলায় আপন জুয়েলার্সের কর্ণধার দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৫ জুলাই নির্ধারণ করা হয়েছে।

২৫ জুন, মঙ্গলবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক খাদেম উল কায়েস এ আদেশ দেন। মামলাটিতে এক ভিকটিমকে আসামিপক্ষের আইনজীবীদের জেরা শেষ হলে এমন আদেশ দেওয়া হয়।

২০১৭ সালের ১৩ জুলাই একই আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। ১৯ জুন একই ট্রাইব্যুনাল আসামিদের বিরুদ্ধ অভিযোগপত্র গ্রহণ করে। এর আগে ২০১৭ সালের ১২ জুন মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তত হওয়ায় সিএমএম আদালত থেকে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এ বদলি করা হয়।

৭ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের (ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার) পরিদর্শক ইসমত আরা এমি পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রটি আদালতে দাখিল করেন।

চার্জশিটে আসামি সাফাত আহমেদ ও নাঈম আশরাফ ওরফে এইচ এম হালিমের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় সরাসরি ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়। অপর আসামি সাফাত আহমেদের বন্ধু সাদমান সাকিফ, দেহরক্ষী রহমত আলী ও গাড়িচালক বিল্লাল হোসনের বিরুদ্ধে ওই আইনের ৩০ ধারায় ধর্ষণের সহযোগিতার অভিযোগ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৮ মার্চ জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানিয়ে অস্ত্রের মুখে ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৬ মে বনানী থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

প্রিয় সংবাদ/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...