বিরাট কোহলি ও আনুশকা শর্মা। ছবি: সংগৃহীত

বিসিসিআই নয়, ক্রিকেটারদের স্ত্রীদের নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন কোহলি

ধারাবাহিক বিতর্কের কারণে ক্রিকেটারদের সঙ্গে স্ত্রী কিংবা বান্ধবীদের রাখা নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরস (সিওএ)।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০১৯, ১৮:০২ আপডেট: ২০ জুলাই ২০১৯, ১৮:০৪
প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০১৯, ১৮:০২ আপডেট: ২০ জুলাই ২০১৯, ১৮:০৪


বিরাট কোহলি ও আনুশকা শর্মা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সর্বশেষ আসরের ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে হারের ক্ষত হয়তো এখন পর্যন্ত ভুলতে পারেনি ভারত। ওই ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৮০ রানের বড় ব্যবধানে হারে বিরাট কোহলির দল। ভক্ত-সমর্থকরা এখনো দাবি করছেন, কোহলির স্ত্রী আনুশকা শর্মাসহ বেশ কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেটারের স্ত্রী গ্যালারিতে উপস্থিত থাকার কারণে ওই ম্যাচে হেরেছে ভারত।

এখানেই শেষ নয়। ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় ভারত। তখনো ভক্ত-সমর্থকদের আক্রমণের বিষয়বস্তু ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটারদের স্ত্রীরা। কারণ ওই ম্যাচেও গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন আনুশকাসহ বেশ কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেটারের স্ত্রী।

চার বছর পরও বদলায়নি ২০১৫ বিশ্বকাপের দৃশ্যপট। ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে অনুষ্ঠিত ২০১৯ বিশ্বকাপেও সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছে ভারত। এবারও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভক্ত-সমর্থকদের আক্রমণের বিষয়বস্তুতে পরিণত হতে হয়েছে কোহলি-রোহিত শর্মাদের স্ত্রীদের।

এমন ধারাবাহিক বিতর্কের কারণে ক্রিকেটারদের সঙ্গে স্ত্রী কিংবা বান্ধবীদের রাখা নিয়ে বৈঠকে বসেছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরস (সিওএ)। এই বৈঠক শেষে অধিনায়ক ও কোচকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসক কমিটি। অর্থাৎ পরবর্তী সিরিজগুলোতে ক্রিকেটাররা সঙ্গে স্ত্রী ও বান্ধবীদের রাখতে পারবে কিনা কিংবা কতদিন থাকবে- সে ব্যাপারে কোচ ও অধিনায়কের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত সিওএ’র এমন সিদ্ধান্তে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অনেকেই। এতদিন জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের স্ত্রী ও বান্ধবীদের যাওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতো ক্রিকেট বোর্ড। অধিনায়ক কিংবা কোচের হাতে এই বিষয়টি কখনই ছিল না।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরেই নানা ব্যাপারে নিয়মিত ক্ষমতা হারাচ্ছেন বিসিসিআই কর্মকর্তারা। লোধা কমিটির একাধিক সুপারিশে রীতিমতো অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়তে শুরু করেছেন তারা।

লোধা কমিটির সুপারিশ মেনে ইতোমধ্যেই বিসিসিআইয়ের সচিবকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রশাসক কমিটি। এবার দলের সঙ্গে ক্রিকেটারদের স্ত্রী-সন্তানদের থাকা নিয়ে সিদ্ধান্ত দেওয়ার ক্ষমতাও কেড়ে নেওয়া হলো।

প্রিয় খেলা/রুহুল