প্রতীকী ছবি

রাজশাহীতে মৃত্যুর হার বাড়ছে, অন্য জেলায় কি অবস্থা

দেশের বেশিরভাগ জেলাতেই এখন করোনা সংক্রমণ বাড়ছে।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২১, ১৩:২০ আপডেট: ১১ জুন ২০২১, ১৩:২৪
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২১, ১৩:২০ আপডেট: ১১ জুন ২০২১, ১৩:২৪


প্রতীকী ছবি

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী, খুলনাসহ সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। একই সঙ্গে দেশের অন্যান্য জেলাগুলোতে বেড়েছে আক্রান্তের হার। 

রাজশাহী মেডিকেলে ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু—প্রথম আলো (১১ জুন ২০২১): রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে সাতজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। আর বাকি আটজন করোনার উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এর মধ্যে রাজশাহীর সর্বোচ্চ আটজন মারা গেছেন। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ছয়জন ও নাটোরের একজন রয়েছেন। শুক্রবার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

আজ শুক্রবার সব মিলিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৭১ শয্যার বিপরীতে ভর্তি আছেন ২৯৭ জন।

চট্টগ্রামে করোনায় ৩ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১২৯—পূর্বপশ্চিম (১১ জুন ২০২১): চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত আরো তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় মোট মারা গেলেন ৬৩৮ জন। একই সময়ে ১ হাজার ৩টি নমুনা পরীক্ষায় ১২৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৪ হাজার ৫৮২ জন।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, চট্টগ্রামের ১১টি ও কক্সবাজারের ১টি ল্যাবে ১ হাজার ৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

খুলনা মেডিকেলে করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫—দ্য ডেইলি স্টার (১১ জুন ২০২১): খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। আজ সকালে করোনা ফোকাল পারসন ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, ‘এদের মধ্যে তিন জন কোভিড-১৯ পজিটিভ ছিলেন। বাকিরা করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। করোনায় মারা যাওয়া তিন জনের মধ্যে দুই জনের বাড়ি বাগেরহাট জেলায় ও একজনের বাড়ি সাতক্ষীরায়।’

শুক্রবার সকাল পর্যন্ত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১০০ শয্যার বিপরীতে ১৪৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। ছবি: ডেইলি স্টার

লালমনিরহাটে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার কমে ১৪.০১ শতাংশ, মৃত্যু ২—দ্য ডেইলি স্টার (১১ জুন ২০২১): দেশের উত্তরাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। স্থানীয় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, এখনই কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, গত ৪ থেকে ১০ জুন পর্যন্ত মোট ১৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৮ শতাংশ। এর আগে ২৮ মে থেকে ৩ জুন পর্যন্ত সাত দিনে ১৫২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩৩ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়।

লালমনিরহাটে এ পযর্ন্ত ছয় হাজার ৩১০টি নমুনা পরীক্ষা করে এক হাজার ১৪৬ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ১৭ জন।

শ্যামনগরে করোনায় আরও একজনের মৃত্যু—মানবজমিন (১১ জুন ২০২১): সাতক্ষীরার শ্যামনগরে করোনা আক্রান্ত হয়ে বিধান চন্দ্র মন্ডল (৩৭) নামের এক দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার ভুরুলিয়া ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়।

করোনায় চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্সের মৃত্যু—বার্তা২৪(১১ জুন ২০২১): নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (মিডওয়াইফ) নার্স আকলিমা আক্তার (৩০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় ঢাকার মুগদা হাসপাতালের আইসিউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়াল—মানবজমিন (১১ জুন ২০২১):  চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৪৪ জন। মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৫ হাজার ৩শ’ ৭৭ জনের। করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের।

ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩৯৮ জন ও ছাড়পত্র পাওয়া রোগীর সংখ্যা ৩৪২।

পঞ্চগড়ে একদিনে করোনা শনাক্তের হার ৪১ শতাংশ—জাগোনিউজ (১১ জুন ২০২১): উত্তরের সীমান্ত জেলা পঞ্চগড়ে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বৃহস্পতিবার ১৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় সাতজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪১ শতাংশ।

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে মোট সুস্থ হয়েছেন ৮১৮ জন। আর করোনায় মারা গেছেন ২০ জন। এদিকে বর্তমানে আক্রান্ত বা হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ১৭ জন।

দিনাজপুরে ৪৩১ জনের করোনা শনাক্ত—জাগোনিউজ (১১ জুন ২০২১): দিনাজপুরে গত দুই সপ্তাহে ২ হাজার ৩৪১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪৩১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তবে জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে শুধুমাত্র সদর উপজেলাতেই শনাক্ত হয়েছেন ৩১১ জন। অর্থাৎ ৭২.১৬ শতাংশই জেলা সদরের।

দিনাজপুর জেলায় গত বছরের এপ্রিল থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪ হাজার ৪৯৬ জন। ওই সময়ে মারা যান ৯৮ জন। আর চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে ৯ জুন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ৬০৫ জন। তাদের মধ্যে ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নোয়াখালীতে আরও ৯৬ জনের করোনা শনাক্ত—বাংলাদেশ প্রতিদিন (১১ জুন ২০২১): নোয়াখালীতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৪০৩টি নমুনা পরীক্ষা করে এ ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে করোনা আক্রান্তের হার ২৩ দশমিক ৮২ শতাংশ।

অপরদিকে, করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নোয়াখালী পৌরসভা এবং সদর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে লকডাউন ১৮ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত নয় হাজার ৪৭৩জন। মোট আক্রান্তের হার ১০ দশমিক ৩৫ শতাংশ। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৫ জন। এতে আক্রান্তের হার ১০ দশমিক ৩৫ ও মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩২ ভাগ।

সাতক্ষীরায় একদিনে রেকর্ড সংখ্যক ১১১ জনের করোনা সনাক্ত—ইত্তেফাক (১১ জুন ২০২১): সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক ১১১ জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি পিসিআর ল্যাবে মোট ২১১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ১১১ জনের করোনা সনাক্ত হয়। শনাক্তের হার ৫২ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

খুলনায় আরও ১০৯ জনের করোনা শনাক্ত, ফুলতলায় বিধিনিষেধ—এনটিভি (১১ জুন ২০২১): খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে গতকাল বৃহস্পতিবার মোট ৩৮৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৪৮ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে খুলনার ২৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪০ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

খুলনা মেডিকেলের পিসিআর ল্যাবে গতকাল বৃহস্পতিবার করোনা শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনা মহানগরী ও জেলার ১০৯ জন, বাগেরহাটের ২৪ জন, যশোরের ছয়জন, সাতক্ষীরার সাতজন ও নড়াইলের দুজন রয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...