ব্র্যাকসহ ২১ এনজিওকে পাকিস্তান ছাড়ার নির্দেশ

আগামী দুই মাসের মধ্যে তাদের কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদিও কর্মকর্তারা বলছেন, এই সিদ্ধান্ত পুর্নবিবেচনার আবেদন করতে পারবে এনজিওগুলো।

জাহিদুল ইসলাম জন
জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক, নিউজ এন্ড কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স
১০ ডিসেম্বর ২০১৭, সময় - ১৫:৩২

পাকিস্তানের প্রত্যন্ত গ্রামে বসানো ব্র্যাকের নলকূপ। সংগৃহীত ছবি


(প্রিয়.কম) পাকিস্তান সরকারের করা নতুন নিয়ম-কানুন অনুসরণ করতে না পারার অভিযোগ এনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় এনজিও ব্র্যাকসহ ২১টি প্রতিষ্ঠানকে পাকিস্তান ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, অ্যাকশনএইড, প্লান, ইন্টারনিউজের, আইআরআই, আইআরডির মতো আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন এনজিও।

আগামী দুই মাসের মধ্যে তাদের কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদিও কর্মকর্তারা বলছেন, এই সিদ্ধান্ত পুর্নবিবেচনার আবেদন করতে পারবে এনজিওগুলো।

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রের বরাত দিয়ে এই খবর জানিয়েছে দেশটির বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম।

২০০৭ সাল থেকে পাকিস্তানের কার্যক্রম চালাচ্ছে বাংলাদেশ ভিত্তিক এনজিও ব্র্যাক।

পাকিস্তান সরকারের এই সিদ্ধান্তের খবরে বিস্ময় প্রকাশ করেছে, আন্তর্জাতিকভাবে প্রসিদ্ধ এনজিও অ্যাকশনএইড। দেশটিতে প্রতিষ্ঠানটির কান্ট্রি ডিরেক্টর ইফতেখার এ নিজামি গত বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের আবেদন প্রত্যাখ্যাত হওয়ার একটি চিঠি পেয়েছি। আমাদের ৬০ দিনের মধ্যে সব কার্যক্রম বন্ধ করতে বলা হয়েছে।’ 

নিজামি বলেন, ‘আইএনজিওর আওতায় দীর্ঘ নিবন্ধণ প্রক্রিয়ায় আমরা সবধরণের তথ্য আর প্রমাণ তাদের সরবরাহ করেছি। আমরা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি প্রয়োজনীয় সব নিয়ম নীতি মাফিক কাগজপত্র আমরা দিতে পেরেছি। ’

‘১৯৯২ সাল থেকে আমরা পাকিস্তানে কাজ করে আসছি। দরিদ্র ও অচ্ছুত মানুষদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে আমরা কাজ করেছি,’ ওই বিবৃতিতে বলেন তিনি।

তবে এই বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন কিছু জানায়নি পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন