কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে অনুপ্রবেশ করা আরও ৯১ জন রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি। ফাইল ছবি

আরও ৯১ রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত 

শনিবার রাত নয়টার দিকে পুলিশের একটি বিশেষ দল নারী-শিশুসহ ৭১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে। পরে দিবাগত রাত একটার দিকে উখিয়া সীমান্তের দায়িত্বে থাকা কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির কাছে তাদের হস্তান্তর করা হয়।

ইতি আফরোজ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট ২০১৭, ১৪:৫৫ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২২:০০
প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট ২০১৭, ১৪:৫৫ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২২:০০


কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে অনুপ্রবেশ করা আরও ৯১ জন রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় নাফ নদী পার হয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকালে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে অনুপ্রবেশ করা আরও ৯১ জন রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি (বিজিবি)।  

২৬ আগস্ট শনিবার রাত নয়টায় ও রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটায় দুই উপজেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে তাদের আটক করা হয়।  

এর আগে ২৬ আগস্ট শনিবার সকালে ৭৩ জন রোহিঙ্গাকে মানবিক সহযোগিতা দিয়ে ফেরত পাঠানো হয়। আর তার একদিন আগে ২৫ আগস্ট শুক্রবার ভোরে উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে ঢুকার চেষ্টাকালে ১৪৬ জনকে ফেরত পাঠানো হয়।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের বলেন, শনিবার রাত নয়টার দিকে পুলিশের একটি বিশেষ দল নারী-শিশুসহ ৭১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে। পরে দিবাগত রাত একটার দিকে উখিয়া সীমান্তের দায়িত্বে থাকা কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির কাছে তাদের হস্তান্তর করা হয়।

টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এস এম আরিফুল ইসলাম বলেন, ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে টেকনাফের দমদমিয়া ও শাহপরীর দ্বীপ এলাকা থেকে ২০ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে বিজিবি। পরে তাদের ফেরত যেতে বাধ্য করা হয়। 

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালে প্রথম বৌদ্ধদের সাথে সংহিসতায় সংখ্যালঘু বহু মুসলিম রোহিঙ্গা নিহত এবং ঘরছাড়া হয়। এরপর বাংলাদেশ সীমান্তের সঙ্গে মিয়ানমারের বেশ কয়েকটি নিরাপত্তা পোস্টে হামলায় পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২০১৬ সালের অক্টোবর থেকেই রাখাইন রাজ্যে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী।

জাতিসংঘের এক হিসেব অনুযায়ী, অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৬৯ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। এতে ৫০ হাজার রোহিঙ্গা ‘বাংলাদেশি’ নাগরিকত্ব পেয়েছে। 

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ