#মুক্তিপিন, প্রিয়.কম

মুক্তিপিন সম্পর্কে

মুক্তিপিন হল বাংলাদেশের সর্বপ্রথম এবং সর্ববৃহৎ উদ্যোগ যেখানে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থান ও ঘটনাসমূহের ডিজিটাল আর্কাইভ।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:০৩ আপডেট: ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:০৯
প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:০৩ আপডেট: ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:০৯


#মুক্তিপিন, প্রিয়.কম

মুক্তিপিন কি এবং কেন?

মুক্তিপিন মূলত বাংলাদেশের সর্বপ্রথম এবং সর্ববৃহৎ উদ্যোগ, যেখানে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করে রাখা হবে বাংলাদেশের মানচিত্রে।

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এই ডিজিটাল হিস্ট্রি আর্কাইভটির নাম ‘প্রিয় মুক্তি পিন’। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের সাথে সম্পর্কিত একটি স্থানকেও অজানা থাকতে দেবো না আমরা। টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া, বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায়, থানায়, গ্রামে, আমাদের প্রিয় ভূখণ্ডের প্রতি ইঞ্চিতে সুপ্ত থাকা ঐতিহাসিক স্থানগুলোকে শনাক্ত করে মুক্তিযুদ্ধের অজানা ইতিহাসকে দীপ্তিময় করে তুলব- আপনি, আমি এবং আমরা। যাতে এক দৃষ্টিতেই দেখতে পাই ইতিহাসের চিহ্নিত সকল স্থান, যে মাটিতে আজো আমাদের শহীদের রক্তের ছাপ লেগে আছে, যেখানে আজো মিশে আছে আমাদের বীরাঙ্গনাদের ত্যাগের চিহ্ন। ইতিহাস পৌঁছে যাবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।

এটি মূলত একটি সামগ্রিক তথ্যবহুল ডিজিটাল আর্কাইভ যেখানে এক নজরেই দেখা যাবে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত প্রতিটি স্থান, তার সাথে সম্পর্কিত ছবি কিংবা ভিডিও এবং জানা যাবে সেই ঘটে যাওয়া ঘটনাটি। এ ডিজিটাল আর্কাইভটি ইতিহাসকে পৌঁছে দেবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে, যাতে প্রজন্মান্তরে হারিয়ে না যায় আমাদের অর্জিত সবচাইতে অমূল্য সম্পদ - মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সহায়তায় প্রিয় লিমিটেড আয়োজন ‘মুক্তিপিন’।

এই মহান উদ্যোগে সবাইকে সংযুক্ত করতে ডিসেম্বর মাস থেকে প্রিয় মুক্তি পিন সফটওয়্যারটি সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশেসহ বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে আগ্রহী যে কেউ এই মহৎ কাজের অংশীদার হতে পারবেন। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে মুক্তিপিন ম্যাপের মাধ্যমে প্রকাশ করে আপনিও হতে পারবেন ইতিহাসের অংশ। পুরো কার্যক্রমটি ০১ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং থেকে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ইং পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

মুক্তিপিনে সংগৃহিত মুক্তিযুদ্ধের সমস্ত ঘটনাগুলোর সম্পর্কে আপডেট পেতে সংযুক্ত থাকুন আমাদের ফেসবুক গ্রপফেসবুক পেইজে

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...