লিভ-ইন সঙ্গীকে মারধরের অভিযোগে আরমান কোহলি গ্রেফতার

থানায় অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরেই পালিয়ে যান অভিনেতা। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত চলছিল। শেষ পর্যন্ত তার খোঁজ পায় পুলিশ।

শামীমা সীমা
সহ-সম্পাদক
১৩ জুন ২০১৮, সময় - ১৮:০৮

অভিনেতা আরমান কোহলি। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বলিউড অভিনেতা আরমান কোহলি ২০১৫ সাল থেকে লিভ-ইন করতেন ফ্যাশন স্টাইলিস্ট নীরু রণধাওয়ার সঙ্গে। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে উঠেছে প্রেমিকাকে মারধরের অভিযোগ। সেই ঘটনার জেরে মুম্বাই পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন আরমান। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩২৩, ৫০৪ ও ৫০৬ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সান্তাক্রুজ থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রের খবর, আরমান ও তার বান্ধবী গত তিন বছর ধরে সান্তাক্রুজের একটি ফ্ল্যাটে একসঙ্গে থাকতেন। এ মাসের ৪ তারিখ আরমানের প্রেমিকা অভিযোগ করেন, ৩ তারিখ টাকা-পয়সা নিয়ে ঝগড়ার সময় তাকে ধাক্কা মেরে সিঁড়ি থেকে ফেলে দেন ৪৬ বছর বয়সী অভিনেতা আরমান কোহলি। এরপর তিনি চুল টেনে ধরে মাথা মেঝেতে আঘাত করেন। মাথায় ও কনুইয়ে আঘাত নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ৩৫ বছর বয়সী নীরু। এরপরই নীরু সান্তাক্রুজ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এ প্রসঙ্গে নীরু বলেন, ‘চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে আমাকে হেনস্তা করেছে আরমান। প্রায় নাকটা ভেঙে ফেলেছিল। আমার কাছে সম্পর্কটা একটা বড় ভুল ছিল, তবু আমি তাকে একটার পর একটা সুযোগ দিয়েছি। আমি সেপ্টেম্বরে সম্পর্কটা ছেড়ে বেরিয়েও যাই। নতুন চাকরি নিয়ে দুবাইয়ে চলে যাই। সেখানেই শান্তিতে ছিলাম আমি।

তিনমাস পর আরমান আমাকে বাড়ি ফিরে আসতে বলে। আমি জানিয়ে দিয়েছিলাম, ফিরব না। তবুও সে আমার কাছে ফিরে আসার কথা বলতে থাকে। সে বলেছিল, তার আমাকে প্রয়োজন, তাই সে বদলে যাবে। আরও বলেছিল, তার পরিবার, ভাই ও তাকে একমাত্র আমি ভালো রাখতে পারব। আমি সব ছেড়ে চলে এসেছিলাম।’

অবশ্য থানায় অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরেই পালিয়ে যান অভিনেতা। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত চলছিল। শেষ পর্যন্ত তার খোঁজ পায় পুলিশ। আজ আদালতে তোলা হয়েছিল অভিনেতাকে। আগামী ২৬ জুন পর্যন্ত আরমানকে পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এর আগে বিগবসে প্রতিযোগী হিসেবে থাকাকালে সহ-প্রতিযোগীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছিল আরমানের বিরুদ্ধে।

সূত্র: এনডিটিভি

প্রিয় বিনোদন/শান্ত 

জনপ্রিয়
আরো পড়ুন