(প্রিয়.কম) শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় শুরু হয়েছে। চার ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় এ হরতালের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)।

১২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘আমি দলের পক্ষ থেকে জানাতে চাই, জামায়াতে ইসলামের এই সকাল-সন্ধ্যা হরতালকে সমর্থন জানাচ্ছে বিএনপি।’

তিনি বলেন, আজকে জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের ডাকা যে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল, এই হরতাল তারা ডেকেছে তাদের নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে। তাদেরকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে যে রিমান্ডে নেওয়া হল, তার প্রতিবাদে। গতকালকেও হরতালে সমর্থন জানানোর ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা ছিলনা। তবে এখন আমার কাছে নির্দেশনা আছে। দলের পক্ষ থেকে এ হরতালকে পূর্ণ সমর্থন জানানো হচ্ছে।

এর আগে গত ১১ অক্টোবর বুধবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমার কাছে এখন পর্যন্ত কোনো ইয়ে (সমর্থন করার নির্দেশনা) আসেনি। আমাদের পক্ষ থেকে জামায়াতের নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত বিএনপির কর্মসূচি ছিল, এর বাইরে কিছু নেই।’

উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর সোমবার রাত ৮টার দিকে রাজধানীর উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টরের একটি বাসার গোপন বৈঠক থেকে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ ৯ নেতাকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

দলের শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতার ও রিমাণ্ডে নেওয়ার প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামী বৃহস্পতিবার সারা দেশে হরতালের ডাক দিয়েছে। তবে এ হরতালের কোনো প্রভাব পড়েনি জনজীবনে। দোকানপাট খোলা রয়েছে। যান-বাহন, স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত, ব্যাংক-বীমার কার্যক্রমও চলছে অন্য দিনের মতো।

এদিকে ১১ অক্টোবর বুধবার উত্তরায় মেট্রোরেলের কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘জামায়াতের হরতাল সহিংস রূপ নিলে জবাবও হবে সেরকম। উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। তাদের সহিংসতার কোনো পজেটিভ রেজাল্ট নেই।’

প্রিয় সংবাদ/শিরিন