রুহুল কবির রিজভী/ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) পদ্মাসেতু দুর্নীতি মামলায় ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বক্তব্যে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার সকালে নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। 

রিজভী বলেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতারা যে ভাষায় বিশ্বব্যাংককে নিয়ে কথা বলেছেন, তাতে সংস্থাটির সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে পারে। এর ফলে বাংলাদেশে চলমান অনেক প্রকল্পে অর্থায়ন সংকট দেখা দিতে পারে।

ক্ষমতাসীন দলের মন্ত্রী ও নেতারা সারাদেশকে দুর্নীতির স্বর্গরাজ্য বানিয়েছেন মন্তব্য করে রিজভী বলেন, বিশ্বব্যাংক সর্বনিম্ন সুদে ঋণ দেয়। অন্য কোনো জায়গা থেকে ঋণ নিতে হয় ৩ শতাংশ সুদ বা তারও ঊর্ধ্বে। সরকারের মন্ত্রী ও নেতাদের কথায় মনে হয়, তারা যেন হঠাৎ করে দুধ দিয়ে গোসল করে নতুন গ্রহ থেকে আবির্ভূত হয়েছেন। এমন কোনো খাত নেই যেখানে দুর্নীতি নেই। লুট করে দেশের সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ফোকলা করে দেওয়া হয়েছে। 

‘খালেদা জিয়ার জন্য সংবিধান ও নির্বাচন বসে থাকবে না’, ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্যের জবাবে রিজভী বলেন, ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে বলতে চাই, তাহলে কী শুধু শেখ হাসিনার জন্যই ভোট-নির্বাচন বসে থাকবে? তাঁর মুখ চেয়েই নির্বাচন হবে কী হবে না সেটি নির্ধারিত হবে? 

পরবর্তী নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই অনুষ্ঠিত হতে হবে। সরকারের অশুভ কোনো পরিকল্পনা বাস্তবায়ন আর সম্ভব হবে না।

প্রিয় সংবাদ/রাকিব/সোহেল