(প্রিয়.কম) যৌতুক মামলায় পলাতক দেখিয়ে অভিযোগ গঠনের পর দিন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন ক্রিকেটার আরাফাত সানি। ১৭ জুলাই সোমবার দুপুরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অসুস্থ অবস্থায় আদালতে উপস্থিত হন সানি। তার পক্ষে চিকিৎসার কাগজপত্র উপস্থাপন করে জামিনের আবেদন করেন আইনজীবী মুরাদুজ্জামান।

শুনানি শেষে মহানগর হাকিম জাকির হোসেন টিপু আরাফাত সানির জামিন মঞ্জুর করেন বলে তার আইনজীবী জানিয়েছেন।

যৌতুকের জন্য নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ১৬ জুলাই রোববার মামলাটির চার্জ শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার আসামি আরাফাত সানি উপস্থিত না থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকা মহানগর হাকিম জাকির হোসেন টিপু। এদিন আদালতে সানির বিরুদ্ধে নাসরিন সুলতানার যৌতুকের জন্য নির্যাতনের মামলার অভিযোগ (চার্জশিট) গঠন করা হয়।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর নাসরিন আক্তারের সঙ্গে সানির পাঁচ লাখ এক টাকার দেনমোহরানায় বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ২০১৫ সালের ২৯ জুলাই ক্রিকেটার সানি ২০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবি করেন। যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় তাকে বিভিন্নভাবে গালাগালি এবং শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

২০১৬ সালের ২৩ ডিসেম্বর নাসরিন তাকে ঘরে তুলে নেয়ার আবেদন করলে সানি যৌতুকের টাকার জন্য ফের চাপ দিতে থাকেন। সর্বশেষ ২০১৭ সালের ১৯ জানুয়ারি বাদীর কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুকের টাকা দাবি করেন সানি।

বাদী ওই টাকা দিতে অস্বীকার করলে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন সানি। নিরুপায় হয়ে নাসরিন আক্তার ২৩ জানুয়ারি ঢাকা মহানগর হাকিম রায়হানুল ইসলামের আদালতে মামলাটি করেন।

চলতি বছরে জানুয়ারির ৫ তারিখে তথ্য প্রযুক্তি আইনে প্রথম মামলা করেন নাসরিন। মামলায় বলা হয়, সানি তার ব্যক্তিগত ছবি প্রকাশ করা ও আরো ছবি প্রকাশের হুমকি দিয়েছে। পরে গত ২২ জানুয়ারি সানিকে তার আমিন বাজারের বাসা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। নিজেকে সানির স্ত্রী দাবি করে এরপর যৌতুক নিরোধ আইন এবং নারী নির্যাতন আইনে আরো দুটি মামলা করেন নাসরিন। পরে সানিকে অস্থায়ী জামিন দেওয়া হয়।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত