আশুলিয়ায় পোশাক শ্রমিক তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় দুইজন গ্রেফতার। ছবি: প্রিয়.কম

আশুলিয়ায় তরুণীকে ‘সংঘবদ্ধ ধর্ষণের’ মামলায় গ্রেফতার ২

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- পরিত্যক্ত গোডাউনের নিরাপত্তাকর্মী পলাশ মাহমুদ ও জাহাঙ্গীর হোসেন। তাদের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কাইয়ূম আবদুল
কন্ট্রিবিউটর, সাভার
প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৪:৪১ আপডেট: ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৫:০৯
প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৪:৪১ আপডেট: ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৫:০৯


আশুলিয়ায় পোশাক শ্রমিক তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় দুইজন গ্রেফতার। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) সাভারের আশুলিয়ায় পরিত্যক্ত গোডাউনে নিয়ে এক পোশাক শ্রমিক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ২৮ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ভোরে আশুলিয়ার চারাবাগ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- পরিত্যক্ত গোডাউনের নিরাপত্তাকর্মী পলাশ মাহমুদ ও জাহাঙ্গীর হোসেন। তাদের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আশুলিয়া থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) সহিদুল ইসলাম জানায়, বৃহস্পতিবার ভোরে আশুলিয়ার চারাবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। মামলার বাকী আসামীদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে। আর ধর্ষণের শিকার তরুণীকে সাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেলের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, নওগাঁর বাসিন্দা ওই তরুণী সাভারে ভাড়া বাসায় থেকে উলাইল প্রতিক নামে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন। গত শুক্রবার ২২ সেপ্টেম্বর পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে দোসাইদ এলাকার হযরত আলী ভূঁইয়ার ছেলে ইস্রারাফিল ও আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে শরিফুল বেড়ানোর কথা বলে ওই তরুণীকে ডেকে নিয়ে যায়।

পরে ঢাকার অদুরে আশুলিয়া এলাকার দোসাইদ ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন র্যাংগস গ্রুপের পরিত্যক্ত গোডাউনে নিয়ে সেখানকার নিরাপত্তা কর্মী জাহাঙ্গীর ও পলাশের সহযোগিতায় ওই নারী শ্রমিককে ধর্ষণ করে তারা। এ ছাড়া মামলায় না জড়ানোর পরামর্শ দিলে স্থানীয় ইউপি সদস্য তাকে ৫০০ টাকা দিয়ে রিকশায় তুলে দেন।

অবশেষে চারদিন পর ওই তরুণীকে উদ্ধার করে আশুলিয়া পুলিশ। উদ্ধারের পরে ওই তরুণী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় চার জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

প্রিয় সংবাদ/শিরিন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...