(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন-নিপীড়নের প্রতিবাদে দেশটির ক্ষমতাসীন দলের প্রধান অং সান সুচিকে ‘জনতার আদালতে’ জুতার মালা পরিয়ে ঢাকা শহর ঘোরানো হয়েছে। এ সময় উত্তেজিত জনতা তার দুই গালে কষে জুতার চড় দিয়েছেন, জুতাপেটা করেছেন। শুধু এতটুকু করেই ক্ষান্ত হননি, শেষ পর্যন্ত পুড়িয়ে দিয়েছেন সুচির প্রতিকৃতি।

এর আয়োজন করেছে ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলন। ‘জনতার আদালত’ শিরোনামে এই অংশে দলটির নেতাকর্মীরা অংশ নেন। এটি ছিল মূলত রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ কর্মসূচির একটি অংশ।

১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচির ডাক দেয় দলটি। সেখান থেকে ঢাকাস্থ মিয়ানমারের দূতাবাস ঘেরাওয়ের কথা ছিল।

বিক্ষোভের এক পর্যায়ে অং সান সুচি’র প্রতিকৃতিতে জুতার মালা পরিয়ে দেওয়া হয়। দলটির নেতাকর্মীরা বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে বিক্ষোভ মিছিল করতে করতে ঢাকাস্থ মিয়ানমারের দূতাবাস ঘেরাওয়ে রওনা দেয়। এ সময় সুচির প্রতিকৃতির গলায় দেখা গেছে জুতার মালা। কিন্তু শান্তিবাগ পর্যন্ত যাওয়ার পর বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা দেয়। পরবর্তীতে সুচি’র প্রতিকৃতির গালে জুতাপেটা করা হয় ও আগুন দেওয়া হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে সুচির প্রতিকৃতিতে জুতার মালা। ছবি: ফোকাস বাংলা

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৫ আগস্ট থেকে নতুন করে সেনা অভিযান শুরু হয়। এ অভিযানে এখন পর্যন্ত ৪০০ জনকে হত্যা এবং ২৬০০ ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার কথা শিকার করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। জাতিসংঘ বলছে, অক্টোবরের পর এ পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে।

এর আগে জাতিগত দ্বন্দ্বের জেরে ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে দেশটির সেনাবাহিনীর চালানো একই রকম অভিযানে কয়েকশত রোহিঙ্গা নিহত হয়। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় হাজারো ঘরবাড়ি।