১৫ মিনিট আদালতের হেফাজতে আমীর-উল-ইসলামের মুঠোফোন

‘আইন সবার জন্য সমান। আপনাকে যদি কনসিডার করি, তাহলে অন্যরা ভাববে সিনিয়র দেখে কনসিডার করা হলো।’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিয়.কম
১৬ জানুয়ারি ২০১৮, সময় - ১২:৩৭

ব্যারিস্টার এম আমীর-উল-ইসলাম। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) নির্বাহী হাকিম দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণা করে দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিল শুনানির সময় জ্যেষ্ঠ আইনজীবী  ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলামের মোবাইল ফোনটি ১৫ মিনিটের জন্য হেফাজতে নেন আদালত। 

১৬ জনুয়ারি মঙ্গলবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে শুনানির সময় এ ঘটনা ঘটে।

সকালে আদালত বসার পর ভ্রাম্যমাণ আদালতের পক্ষে এজলাসের ডায়াসে দাঁড়িয়ে শুনানি শুরু করেন সংবিধান বিশেষজ্ঞ ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম।

শুনানির সময় একপর্যায়ে আমীরের মোবাইলটি বেজে ওঠে। এ সময় জ্যেষ্ঠ এই আইনজীবীর উদ্দেশে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আইন সবার জন্য সমান। আপনাকে যদি কনসিডার (বিবেচনা) করি, তাহলে অন্যরা ভাববে সিনিয়র দেখে কনসিডার করা হলো। আপনার মোবাইল ফোনটি আদালতের কাছে জমা দেন। এটা ১৫ মিনিটের জন্য সিজ (জব্দ) করা হলো।’

আমীর-উল ইসলামের মোবাইল জমা নেওয়ার সময় হেসে কথা বলছিলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। আমীর উল ইসলামও হাসি মুখে মুঠোফোনটি বেঞ্চ অফিসারের হাতে তুলে দেন। এর পর আবার শুনানি শুরু হয়। 

সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলার সময় আদালতের এজলাসে মোবাইল বন্ধ করে রাখতে হয়। মোবাইল বেজে ওঠলে বা কল আসলে তা জব্দ করা বা কোনো কোনো ক্ষেত্রে আর্থিক জরিমানা করা হয়ে থাকে।

প্রিয় সংবাদ/ইতি

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন