(প্রিয়.কম) এক বছরেরও বেশি সময়য় ধরে সাকিব আল হাসান-মেহেদি হাসান মিরাজরা আছেন স্পিন কোচবিহীন। শ্রীলঙ্কান রুয়ান কালপাগে চলে যাওয়ার পর আর কোন স্পিন কোচ নিয়োগ দেয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। স্থানীয় বা নিজস্ব কোচের কাছেই টুকটাক শিখে নিচ্ছেন স্পিনাররা। তবে এবার স্পিন কোচ নিয়োগের ব্যাপারে চূড়ান্ত উদ্যোগ নিচ্ছে বোর্ড। উপমহাদেশেরই কোন কোচই নিয়োগ দেওয়া হবে, এমন আভাসও দিয়েছেন ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।

খুব বেশিদিন নয়, এইতো গত বছরের অক্টোবরে দেশের মাঠে ইংল্যান্ডকে স্পিনের ঘূর্ণিতে নাস্তানাবুদ করে দিল বাংলাদেশ। ইংলিশদের ৪০ উইকেটের ৩৮টি নিয়েছিলেন স্পিনাররা। এর মধ্যে ১৯টি মেহেদী হাসান মিরাজের, ১২টি সাকিব আল হাসান আর বাকি সাতটি পেয়েছেন তাইজুল ইসলাম। সব ঠিকঠাক থাকলে আসছে আগস্টে দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ। তাই এবারও স্পিনেই ঘায়েল করার পরিকল্পনা সামনে রেখেই শিগগিরই নিয়োগ দেওয়া হবে স্পিন কোচ।

স্পিন ডিপার্টমেন্টকে আরও ধারালো করতে বেশ কয়েকজনের সাথে কথা চলছে বলে জানিয়েছেন আকরাম খান। রোববার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের সাথে এ প্রসঙ্গে আকরাম বলেন, ‘আগেও কয়েকজনের সাথে কথা হয়েছিল। নতুন করে আরও দু-একজনের সঙ্গেও কথা হচ্ছে। আমরা যতটা সম্ভব দ্রুত স্পিন কোচ নিয়োগ দিতে যাচ্ছি। স্পিন কোচ মনোনয়নের যাবতীয় প্রক্রিয়া চলছে পুরোদমে। সব কিছু ঠিক থাকলে হয়ত আগামী দুই/তিন দিনের মধ্যে চূড়ান্ত হয়ে যাবে নতুন স্পিন কোচ।’

এশিয়া উপমহাদেশের কাউকেই কোচ হিসেবে নেওয়া হবে জানিয়ে আকরাম আরও যোগ করেন, ‘এটা আমাদের জন্য এখন খুবই গূরুত্বপূর্ন। সমস্যা হচ্ছে একজনকে নির্বাচন করা। কারণ অনেকের সাথেই কথা হয়েছে। তবে আমরা একান্তভাবে চেস্টা করছি এশিয়া উপমহাদেশের কাউকে নিতে। কারণ আমাদের স্পিন তিনিই ঠিকভাবে বুঝতে পারবেন।’

প্রিয় স্পোর্টস/কামরুল