এদের মাঝে ভবিষ্যতের সাকিব, তামিম, মাশরাফিদের খোঁজ করবে বিসিবি। ছবি: প্রিয়.কম

এভাবে ভাবতেই বিসিবির এত বছর লেগে গেল?

অবশেষে ক্রিকেট কাঠামোর উন্নয়নে মন লাগানোর চেষ্টা শুরু করেছে বিসিবি।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭ মে ২০১৮, ২১:২৯ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ০৯:৩২
প্রকাশিত: ০৭ মে ২০১৮, ২১:২৯ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ০৯:৩২


এদের মাঝে ভবিষ্যতের সাকিব, তামিম, মাশরাফিদের খোঁজ করবে বিসিবি। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের পথচলা শুরু ১৯৮৬ সালে। ক্রিকেটের সঙ্গে বসবাস তারও আগে থেকে। সময়ের পালাবদলে বিশ্বকাপে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ, পেয়েছে টেস্ট মর্যাদা। ঝুলিতে জমা হয়েছে বাহারি সাফল্য, মিলতে শুরু করেছে সমীহ। কিন্তু বাংলাদেশের ক্রিকেট অবকাঠামো কতটা এগিয়েছে? এই প্রশ্নের উত্তর এখনও অসুন্দর-অস্বস্তিরই রয়ে গেছে।

প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার হিসেবে ক্রিকেটে বাংলাদেশের পথচলা ৩২ বছরের। টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার দিক থেকেও সময়টা কম নয়। ১৮ বছর পেরিয়ে গেছে। কিন্তু আঞ্চলিক ক্রিকেট নিয়ে কিছুই করতে পারেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। সব ঢাকাকেন্দ্রিকই রয়ে গেছে। এ ছাড়া আলোচনার টেবিলেও থেকে গেছে আরও অনেক সম্ভাবনা।

অবশেষে ক্রিকেট কাঠামোর উন্নয়নে মন লাগানোর চেষ্টা শুরু করেছে বিসিবি। আঞ্চলিক ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন গঠন করার ঘোষণা এসেছে এর আগে। যেটা এক মাসের মধ্যেই দাঁড়িয়ে যাওয়ার কথা। ইতোমধ্যে তার ১৫ দিন চলে গেছে। অনেক বেশি পরিমাণে মেধাবী ক্রিকেটারের খোঁজ করতে এবার আরও একটি কার্যক্রম হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)

নতুন ক্রিকেট প্রতিভার সন্ধানে ঢাকার বিভিন্ন ক্রিকেট একাডেমি নিয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হচ্ছে বিসিবি একডেমি কাপ। আগামী ২০ মে থেকে বিকেএসপি, সিটি ক্লাব মাঠ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে টার্ফের উইকেটে শুরু হতে যাওয়া পরীক্ষামূলক এই টুর্নামেন্টে অংশ নেবে ঢাকার ৩২টি একাডেমি। যেখানে ব্যাট-বলের লড়াইয়ে নাম লেখাবেন ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সী তরুণ ক্রিকেটাররা।

এটা আপাতত পরীক্ষামূলক কার্যক্রম। যে কারণেই কেবল ঢাকার একাডেমিগুলোকে বিবেচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া বিসিবি ও সিসিডিএমের তালিকাভুক্ত কোনো ক্রিকেটার এই টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবে না। এবারের ফল দেখে আগামী বছর পুরো দেশ থেকে একাডেমি বাছাই করে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হবে। এখান থেকে সর্বোচ্চ পরিমাণ প্রতিভা বাছাই করে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে বিসিবি।

বিষয়টির ঘোষণা দিতে সোমবার সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটি। টুর্নামেন্ট সম্পর্কে কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে এবার আয়োজন করব। পরবর্তীতে এর পরিসর আরও বাড়ানো হবে। আমাদের উদ্দেশ্য এখান থেকে ভালো মানের কিছু খেলোয়াড় তুলে এনে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। এ ছাড়া সেমিফাইনালে ওঠা চারটা দলকে ডেভেলপমেন্টের আন্ডারে নিয়ে আসার চেষ্টা করবে বিসিবি।’

একাডেমিগুলোতে অনুশীলনের সুযোগ থাকলেও খুদে ক্রিকেটারদের তেমন ম্যাচ খেলা হয় না। ম্যাচ খেলার সুযোগ করে দিতেই বিসিবির এই ভাবনা। সুজন বলছেন, ‘একাডেমিগুলোতে অনুশীলন করার সুযোগ থাকলেও ম্যাচ খেলার সুযোগ নেই। প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট না খেলতে পারলে খেলোয়াড়দের ট্যালেন্ট দেখানোর সুযোগ থাকে না। এর মাধ্যমে ছেলেরা নিজেদের প্রতিভা দেখানোর সুযোগ পাবে। ওখানে আমাদের নির্বাচকরা এবং কিংবা গেম ডেভেলমেন্ট লোক থাকবে, তাদের কাজটা হবে প্রতিভা খুঁজে বের করা। সংখ্যা বেশি হলে সমস্যা নেই। যত বেশি প্রতিভা আসবে, ততোই আমাদের লাভ।’

পুরো দেশে এত একাডেমি থাকতে মাত্র ৩২টি কেন? ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবি পরিচালক সুজন বলেন, ‘অনুশীলন সুবিধা, লেভেল-১ কিংবা ২ কোচিং করা কোচ স্টাফ আছে কি না, কত বছর ধরে একাডেমি চলছে বা একাডেমিগুলো কতটা পেশাদার এগুলো বিবেচনায় আনা হয়েছে। যেগুলো আমাদের মানদণ্ডে ঠিক নেই, সেইসব একাডেমিকে আমরা সুযোগ দেইনি। আমাদের চেষ্টা থাকবে কোন একাডেমি যেন ব্যবসার কেন্দ্র না হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো যেন ক্রিকেটটার তৈরির কারখানা হতে পারে।’

বিসিবি একাডেমি কাপের ম্যাচ হবে ৪০ ওভারের। নক আউট ভিত্তিতে প্রথম রাউন্ড, দ্বিতীয় রাউন্ড, কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনাল ও ফাইনাল মিলিয়ে মোট ৩১টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ১ লাখ টাকা, রানার আপ ৫০ হাজার টাকা। ম্যাচ সেরার পুরস্কার হিসেবে ৩ হাজার, টুর্নামেন্টের সেরা ব্যাটসম্যান ও সেরা বোলার ১০ হাজার টাকা পাবেন। টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটারকে দেওয়া হবে ১৫ হাজার টাকা।

অনেক দেরিতে হলেও বিসিবির এসব কার্যক্রম বাস্তবায়িত হওয়ার আগেই সমাদৃত হচ্ছে। ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট অনেকেই নতুন দিনের আশায় দিন গুনতে শুরু করেছেন। অনেকেরই আশা, ভালোভাবে আয়োজন করা হলে এসব টুর্নামেন্ট থেকেই বাংলাদেশ পেয়ে যাবে ভবিষ্যতের সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাশরাফি বিন মুর্তজাদের।  

প্রিয় খেলা/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

আহা, জয় এত মধুর!

প্রিয় ২ দিন, ৩ ঘণ্টা আগে

loading ...