জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আদালত প্রাঙ্গণে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ফাইল ছবি

ভোটের আগে জামিনে মুক্তি সম্ভব?

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে দলের পক্ষে ভোট চেয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়ে ৫৭ দিন যাবত কারাগারে রয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি মিলবে কি?

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬ এপ্রিল ২০১৮, ২২:১২ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৩২


জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আদালত প্রাঙ্গণে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জামিনে কারামুক্ত হতে পারবেন কিনা, এই নিয়ে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে জনমনে। তবে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আশা করছেন, তাদের নেত্রী মুক্তি পাবেন এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিবেন।

জাতীয় সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা চলতি বছরের ডিসেম্বরে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে দলের পক্ষে ভোট চেয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপরদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়ে ৫৭ দিন যাবত কারাগারে রয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকার সময়ে বিদেশি কোম্পনি নাইকো, গ্যাটকো, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুর্নীতি করেছেন–এমন অভিযোগ এনে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী ১৫ আগস্ট জন্মদিন পালন করায় মানহানির মামলা, মুক্তিযুদ্ধের সময়ের শহিদের সংখ্যার বিষয়ে খালেদা জিয়ার মন্তব্য নিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ তুলে একাধিক মামলা হয়। এ ছাড়া ২০১৪ সালে সরকারবিরোধী আন্দোলনের (হরতাল-অবরোধ) সময় গাড়ি পোড়ানো, অগ্নিসংযোগ, যাত্রীবাসে প্রেট্রোলবোমা হামলাসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগে সারাদেশে একাধিক মামলা হয়। মোট ৩৬টি মামলা মাথায় নিয়ে কারাগারে রয়েছেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

এসবের মধ্যে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে অবস্থিত অস্থায়ী আদালতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় যুক্তিতর্কের জন্য দিন ধার্য করা আছে। যুক্তিতর্ক শেষে এ মামলার রায় ঘোষণা করা হবে যেকোনো দিন। সে রায়ে কত দিনের সাজা হবে, নাকি খালাস দেওয়া হবে তা আগেই বলা কঠিন।

কুমিল্লায় বাসে প্রেট্রোল বোমা হামলার অভিযোগে দায়ের করা হত্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে হুকুমের আসামি করা হয়েছে। সে মামলাটি ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারাধীন। এ মামলায় ম্যাজিস্ট্রেট কি রায় দেবেন, সেটি নিয়ে চিন্তিত খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

থেমে নেই নাইকো, গ্যাটকো ও বড় পুকুরিয়ার বিষয়ে দায়ের করা মামলাগুলোও। এগুলোর বিচারকাজও চলছে বকশীবাজারের আদালতে। নতুন করে কোনো মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখানো হবে কিনা, সেটিও জানেন না কেউই। সব মিলিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের আগের ৯ মাসের মধ্যে এসব মামলায় আইনি লড়াই করে খালেদা জিয়া কারামুক্তি পাবেন কিনা সেটি নিয়ে রয়েছে বিস্তর প্রশ্ন।

যদিও মামলা থেকে পরিত্রাণ পেতে এবং নির্বাচনে অংশ নিতে ইতোমধ্যে খালেদা জিয়ার পক্ষে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বিদেশি আইনজীবী লর্ড কারলাইলকে। অবশ্য বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের অনুমতি ছাড়া কারলাইল খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে দাঁড়াতে পারবেন না। তিনি শুধু খালেদা জিয়াকে মামলা থেকে খালাস পেতে ও কারামুক্ত করতে পরামর্শ দিতে পারবেন। সে কারণে কেউ কেউ মনে করছেন লর্ড কারলাইল আদালতে দাঁড়িয়ে কথা বলতে না পারলেও আন্তর্জাতিকভাবে লবিং করবেন। বিশ্বের কাছে খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরবেন। লর্ড কারলাইল লন্ডনের আদালতে ১৮ বছর খণ্ডকালীন বিচারক হিসেবে কাজ করেছেন।

এতগুলো মামলায় নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়া জামিন পাবেন কিনা–এমন প্রশ্নের জবাবে খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম প্রিয়.কমকে বলেন, ‘৩৬টি মামলার মধ্যে তিনটি বাদে সবগুলোতেই জামিনে আছেন ম্যাডাম (খালেদা জিয়া)।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আমরা আশা করছি ৮ মে আপিল বিভাগ ম্যাডামকে জামিন দিবেন।’

আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘এ মামলায় জামিন পেলে তিনটি মামলা (নড়াইল, কুমিল্লা ও তেজগাঁও) দায়ের করা মামলাগুলোতে সহজেই জামিন পাবেন ম্যাডাম।’

কারণ হিসেবে এই আইনজীবী জানান, এ মামলাগুলো যে ধারায় করা হয়েছে, সেগুলো জামিনযোগ্য।

এদিকে ২০১৪ সালে হরতাল অবরোধের সময় কুমিল্লায় যাত্রী বাসে প্রেট্রোল বোমা হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার কিছু আসামি পলাতক ও কিছু আসামি জামিনে রয়েছেন। আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা আশা করছি সেই বিবেচনায় এই মামলায় ম্যাডাম জামিন পাবেন।’

নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার জামিন আইনগতভাবে মিলবে কিনা? এমন প্রশ্নের উত্তরে খালেদা জিয়ার আরেক আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া প্রিয়.কমকে বলেন, ‘এখনকার পরিস্থিতি এক রকম। নির্বাচনের আগের পরিস্থিতি হবে অন্য রকম।’

সে বিষয়গুলো মাথায় নিয়েই খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা সামনের দিকে আগাচ্ছেন বলে জানান সানাউল্লাহ। তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতিই বলে দেবে নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার জামিন হবে কিনা ‘

এখানে এ বিষয়ে পরিষ্কার কিছুই বোঝা যাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেন এই আইনজীবী।

জানতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান প্রিয়.কমকে বলেন, ‘খালেদা জিয়া সবগুলো মামলাতেই জামিনে রয়েছেন। শুধু জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা ছাড়া।

আগামী ৮ মে এ মামলার জামিন বিষয়ে আপিল বিভাগে শুনানি হবে। শুনানি শেষে আদালত তাকে জামিন দিবে কিনা সেটি আদালতের বিষয়।’ তবে সেদিন তারা খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে কড়া যুক্তি উপস্থাপন করবেন বলেও জানান।

খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘শুধু খালেদা জিয়া কেন, যারাই অন্যায় করবে তাদের বিচার হবে। কারাগারে থাকতে হবে।’

বাইরের দেশের কিছু উদাহরণ টেনে দুদকের এই আইনজীবী বলেন, ‘হলিউডের সালমান খান, দক্ষিণ কোরিয়ার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে অন্যায় করার কারণে সাজা দিয়েছে আদালত।’

প্রিয় সংবাদ/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
আস্থা রাখুন—হিন্দু সম্প্রদায়কে ফখরুল
মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক ১২ নভেম্বর ২০১৮
প্রথম দিন ১৩২৬টি ফরম বিক্রি করেছে বিএনপি
মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক ১২ নভেম্বর ২০১৮
কারাগারের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বন্দী
জনি রায়হান ১২ নভেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
কেমন আছেন খালেদা জিয়া?
কেমন আছেন খালেদা জিয়া?
জাগো নিউজ ২৪ - ৩ সপ্তাহ, ১ দিন আগে