(প্রিয়.কম) আপনার ভ্রমণ গন্তব্যের উপর নির্ভর করছে ভিসায় কোন পোর্টের জন্য আবেদন করবেন। ভারতীয় ভিসা ফর্ম পূরণের সময় অবশ্যই আপনাকে আপনার গন্তব্য, সেখানে কোথায় থাকবেন সে ঠিকানা এবং উদ্দেশ্য উল্লেখ করতে হবে। সেক্ষেত্রে ভুল পোর্ট উল্লেখ করা অযথা বিড়ম্বনার কারণ হতে পারে। প্রথমবার ভারত ভ্রমণ করছেন এমন ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এই সমস্যাটা বেশি হয়ে থাকে। 

জেনে নিন আপনার গন্তব্য অনুযায়ী কোন পোর্টটি যথাযথ হবে-

* দার্জিলিং, সান্দাকফু, ডুয়ার্স গমনের ক্ষেত্রে বেছে নিন চেংরাবান্ধা/বাংলাবান্ধা পোর্ট

* মেঘালয় বা শিলং যেতে হলে ডাউকি পোর্টই উত্তম

* আসাম/ত্রিপুরায় বেড়ানোর জন্য বেছে নিতে পারেন আগরতলা পোর্ট

* কলকাতা ভ্রমণের জন্য সবচেয়ে ভালো হবে হরিদাসপুর/গেদে পোর্ট।

তবে মজার ব্যাপার হলো হরিদাসপুর/গেদে পোর্টটি আপনি অন্য যে পোর্টই নেন না যাতায়াতের জন্য উন্মুক্ত পাবেন। অর্থাৎ, আপনি চেংরাবান্ধা পোর্ট নিলেন, তাহলে এমনিই আপনি হরিদাসপুর/গেদে পোর্টের অনুমোদন পেয়ে গেলেন। ইন্ডিয়ান হাই কমিশন ভারত ভ্রমণকে আরও উৎসাহিত করতে সমন্বিত পোর্ট সুবিধা চালু করেছে। এই সুবিধা অনুযায়ী, স্থলপথে হরিদাসপুর বা বেনাপোল, রেলপথে গেদে বা দর্শনা এবং বাংলাদেশের সাথে সংযুক্ত ২৪টি এয়ারপোর্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন আপনি। ভিসায় আপনার পোর্ট এন্ট্রি যে স্থানই থাকুক না কেন এই সুবিধা আপনি পাবেন। 

তবে আপনার ভিসার পোর্ট এন্ট্রি যদি সমন্বিত সুবিধা দেওয়া পথগুলোই হয় তাহলে অন্য পোর্ট ভারতে প্রবেশ বা বের হওয়ার জন্য ব্যবহার করা যাবে না। তাই কলকাতা ভ্রমণে সম্ভব হলে অন্য পোর্ট অব এন্ট্রি নিন। তাহলে ভারত প্রবেশের ক্ষেত্রে আপনার জন্য ৪টি পথ খুলে যাবে। আর প্রয়োজনে ভিসায় থাকা পোর্ট ব্যবহার না করেও আপনি এইসব পোর্ট দিয়ে ভারত প্রবেশ বা প্রস্থান করতে পারবেন।

সম্পাদনাঃ ড. জিনিয়া রহমান

প্রিয় ট্রাভেল সম্পর্কে আমাদের লেখা পড়তে ভিজিট করুন আমাদের ফেসবুক পেইজে। যে কোনো তথ্য জানতে মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। ভ্রমণ বিষয়ক আপনার যেকোনো লেখা পাঠাতে ক্লিক করুন এই লিংকে - https://www.priyo.com/post।