(প্রিয়.কম) আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনই বিএনপি পাবে এমন নিশ্চয়তা পেলে তারা নির্বাচন কমিশন নিয়ে আর কোনো কথা বলবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

১৯ জানুয়ারি শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, 'জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনই বিএনপি পাবে এমন নিশ্চয়তা পেলে তারা নির্বাচন কমিশন নিয়ে আর কোনো কথা বলবে না।'

সম্প্রতি ঢাকা উত্তরের নির্বাচন স্থগিতের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, 'নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক করে কমিশনারের বক্তব্যে বিএনপি পঞ্চমুখ হয়েছে, এখন একটু স্বার্থে লাগলেই তারা কুন্ঠিত হন। আসলে বিএনপি যে কোনো কিছু নিয়ে একটা মন্তব্য করবেই। যারে দেখতে নারী তার চলন বাঁকা।'

'পাকিস্তানের ভাবধারা নিয়ে বিএনপি চলছে তারপরও কেন বিএনপিকে নির্বাচনের জন্য ডাকা হচ্ছে', অধ্যাপক মুনতাসির মামুনের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, 'নির্বাচনে আসা যে কোনো রাজনৈতিক দলের অধিকার।'

আগামী নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে দেশের পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, '২১ বছর ক্ষমতার বাইরে থেকে আমাদের অর্জিত অনেক কিছু বর্জিত হয়ে গেছে। আগামী নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। বিভীষিকায় হারিয়ে যেতে হবে। আর মুক্তিযুদ্ধ পাকিস্তানের দিকে ধাবিত হবে।'

অধ্যাপক মুনতাসির মামুন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, 'বিএনপি কি বাংলাদেশকে বিশ্বাস করে? না করে না। আমরা শুধু জামায়াতকে বলি তারা পাকিস্তানের ধ্যান ধারণায় চলছে। আসলে বিএনপিও একই।'

শুক্রবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের জন্মবর্ষিকীর ক্রোড়পত্র বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুনতাসির মামুন বলেন, 'আজকে ক্রোড় পত্রটা পড়েছেন? এই ক্রোড়পত্র কীভাবে ছাপা হয়। সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয় কী করে? বিএনপি যদি বাংলাদেশকে বিশ্বাস করতো তবে তারা জামায়াতের সাথে জোট করতো না।'

২৬ বছরের অভিযাত্রা ও নির্বাচনের বছরে নির্মূল কমিটির আন্দোলন নামের ব্যানারে আয়োজিত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভাপতিত্ব করেন বিচারপতি সামসুল হুদা। বক্তব্য রাখেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, মেজর জেনারে (অব) আব্দুর রশীদ, শাহীন রেজা নূর, ডা. নূজহাত চৌধুরী, শমী কায়সার।

প্রিয় সংবাদ/নোমান