(প্রিয়.কম) জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ- এর তথ্য অনুযায়ী মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনীর গণহত্যা আর ভয়ংকর নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে গত ২৫ আগস্ট থেকে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অন্তত চার লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। 

এসব শরণার্থীদের প্রায় ৬০ শতাংশ শিশু। লাখো মানুষের ভিড়ে এ সব শিশুর অনেকেই হারিয়ে ফেলছে তাদের বাবা-মাকে। আর হারিয়ে যাওয়া এ সব শিশুদের নিজ পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে টেকনাফে ‘লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড’ বুথ চালু করেছে কামাল নামের একজন রোহিঙ্গা শরণার্থী।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা, ইউএনএইচসিআর-এর প্রকাশিত ৪০ সেকেন্ডের একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, একটি মঞ্চ বানিয়ে নিখোঁজ রোহিঙ্গা শিশুদের বিষয়ে মাইকিং করছেন কামাল। 

তিনি জানান, গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১২৯টি শিশুকে তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিয়েছে ‘লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড’ বুথ।

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৫ আগস্ট থেকে নতুন করে সেনা অভিযান শুরু হয়। এতে ১৪ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অন্তত চার লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এর আগে জাতিগত দ্বন্দ্বের জেরে ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে দেশটির সেনাবাহিনীর চালানো একই রকম অভিযানে কয়েকশত রোহিঙ্গা নিহত হয়। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় হাজারো ঘরবাড়ি। ওই অভিযানের বর্বরতায় বাধ্য হয়ে অন্তত ৮০ হাজার রোহিঙ্গা পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় গ্রহণ করে।

ভিডিও

প্রিয় সংবাদ/শিরিন