(প্রিয়.কম) চাঁদা না পেয়ে স্বামীকে বেঁধে রেখে নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার ছাত্রলীগ সভাপতি সুমন হোসেন মোল্লাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ১৭ জুলাই সোমবার ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি সুমনকে মৌখিকভাবে বহিষ্কার করে।

এর আগে ১৬ জুলাই রোববার রাতে বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সেরনিয়াবাত ও সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে ধর্ষণে অভিযুক্ত সুমন মোল্লাকে বহিষ্কারের সুপারিশ করে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে চিঠি পাঠান।

সুমনকে বহিস্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সেরনিয়াবাত বলেন, ধর্ষণের অভিযোগ ওঠায় বানারীপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন হোসেন মোল্লাকে দল থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়। কেন্দ্র মৌখিকভাবে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। এখন লিখিত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অপেক্ষা।

প্রসঙ্গত, ১৫ জুলাই শনিবার রাতে এক লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে স্বামীকে বেঁধে রেখে নববধূকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে ছাত্রলীগ নেতা সুমনের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর ১৬ জুলাই রোববার বিকেলে ধর্ষণের শিকার ওই নারী বানারীপাড়া থানায় মামলা দায়ের করলে রাত সাড়ে আটটায় বরিশাল নগরের কালীবাড়ি রোড থেকে সুমন মোল্লাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ঘটনার বিষয়ে বানারীপাড়া থানার পরিদর্শক সাজ্জাদ হোসেন জানান, সুমনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত