(প্রিয়.কম) বাংলাদেশের সাথে রবি বোপারার সম্পর্কটা বেশ পুরানো। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) প্রথম থেকেই খেলছেন তিনি। পঞ্চম আসরে খেলছেন রংপুর রাইডার্সের জার্সিতে। শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বিপিএলের পরিবর্তনগুলো দেখেছেন সামনে থেকেই। ভালোর পাশাপাশি কিছু খারাপ অভিজ্ঞতাও হয়েছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইংল্যান্ডের এই ক্রিকেটারের।

নানা আসরের অভিজ্ঞতা থেকে বোপারা জানালেন, ধীরে ধীরে বিপিএলে আর্থিক ব্যাপারগুলোতে স্বচ্ছতা আসাতেই বিদেশি ক্রিকেটাররা এখন আরও বেশি আগ্রহ পাচ্ছে এখানে আসার। বাংলাদেশের একটি শীর্ষস্থানীয় পত্রিকার সাথে এই প্রসঙ্গে কথার ফাঁকেই উঠে আসে, চিটাগং কিংস (বর্তমান চিটাগং ভাইকিংস) নাম নিয়ে খেলা চট্টগ্রাম ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকপক্ষের কথা। তাদের বিরুদ্ধে পুষে রাখা ক্ষোভ আর আটকে রাখতে পারলেন না এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

বিপিএলের আর্থিক দিক নিয়ে বলেন, ‘এখন অনেক বিদেশি খেলোয়াড় আসছে, কারণ তারা এই লিগটাকে ভরসা করতে পারছে। প্রথম দুটি আসরের খুব দুর্নাম হয়েছিল। পাওনা পরিশোধে দেরি হতো। তবে এটা প্রতিবছরই কোনো না কোনো একটা দলে হয়। তবে এখন অবস্থা অনেক ভালো হয়েছে। এটার প্রভাবে দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দেরও মান বেড়েছে।’

বিপিএলে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক ব্যবস্থাপনা আগের চেয়ে অনেক ভালো হলেও বিপিএলের প্রথম থেকেই পারিশ্রমিক নিয়ে তেমন বড় সমস্যা হয়নি বোপারার। তবে চট্টগ্রাম ফ্র্যাঞ্চাইজির দিকে আঙ্গুল তুলে বোপারা বলেন, ‘আমার জন্য অবশ্য সেটি (পারিশ্রমিক) বেশির ভাগ সময়ই ভালো ছিল। তবে হ্যাঁ, খারাপ সময় আমারও কেটেছে। সবচেয়ে খারাপ সময় কেটেছে চিটাগং কিংসের (বিপিএলের প্রথম দুই আসরে চট্টগ্রাম ফ্র্যাঞ্চাইজি খেলেছে এই নামেই) হয়ে। ওই দলের মালিক সামির চৌধুরী, আমার দেখা সবচেয়ে খারাপ। এখনো ওদের কাছে অনেক পাওনা রয়ে গেছে। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে অন্যরা ভালো হয়েছে।’

প্রিয় স্পোর্টস/আশরাফ