চট্টগ্রামের মানচিত্র।

সদর দফতরের আদেশেও বদলি হননি দুই ওসি

বদলির আদেশ পাওয়া এ দুই ওসি হলেন- বায়েজিদ থানার আবুল কালাম ও আকবর শাহ থানার মুহাম্মদ আলমগীর (আলমগীর মাহমুদ)।

আয়েশা সিদ্দিকা শিরিন
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১০ মে ২০১৮, ১৩:১৩ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১১:৩২
প্রকাশিত: ১০ মে ২০১৮, ১৩:১৩ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১১:৩২


চট্টগ্রামের মানচিত্র।

(ইউএনবি) চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) দুই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশে বদলি করা হলেও আদেশ অমান্য করে স্ব স্ব থানায় কর্মরত আছেন তারা। 

বদলির আদেশ পাওয়া এ দুই ওসি হলেন- সিএমপির বায়েজিদ থানার আবুল কালাম ও আকবর শাহ থানার মুহাম্মদ আলমগীর (আলমগীর মাহমুদ)।

সূত্র জানায়, গত ৪ এপ্রিল পুলিশ সদর দফতরের প্রজ্ঞাপন (৪৪.০১.০০০০.০১১.১৫.০০২.২০১৮-১২৮০/১(১৪) স্মারক মূলে আবুল কালাম (বিপি-৬৭৯৪০৬৫৫)ও মুহাম্মদ আলমগীরকে (পিপিএম-৭৫৯৯০৩০৯৭২) ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশে বদলির আদেশ দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত আইজিপি (এআইজি) মো. মোখলেসুর রহমান স্বাক্ষরিত উক্ত আদেশে উল্লেখ করা হয়, বদলিকৃতরা কর্মস্থলে যোগদানের উদ্দেশে আগামী ২০ এপ্রিলের মধ্যে ছাড়পত্র গ্রহণ করবেন। অন্যথায় ২১ এপ্রিল থেকে তাৎক্ষণিক অবমুক্ত (স্ট্যান্ড রিলিজ) হয়েছেন বলে গণ্য হবেন।

অভিযোগ রয়েছে, এ নির্দেশনার পরও দুই ওসি ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশে যোগদান করেননি। এখনো তারা স্ব স্ব থানার ওসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, ‘দুই থানার ওসিদের বদলির একটি অর্ডার আমি পেয়েছি। আমি এতদিন দেশের বাইরে ছিলাম। বুধবার বিকেলে অফিসে জয়েন করেছি। তাই এতদিন কার্যকর হয়নি। আমি বিষয়টি দেখছি। দু’একদিনের মধ্যে তারা বদলি হয়ে যাবেন। তারা আর থানায় থাকবেন না।’

২০ এপ্রিলের মধ্যে যোগদান না করলে পরদিন ২১ এপ্রিল তাদের স্ট্যান্ড রিলিজ করার পুলিশ হেড কোয়াটার্সের নির্দেশের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘দুই ওসি তাদের বদলির আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে পুলিশ হেড কোয়াটার্সে আমার মাধ্যমে একটি আবেদন জমা দিয়েছেন। তাই পুলিশ কোয়াটার্স থেকে জবাব না আসা পর্যন্ত স্ট্যান্ড রিলিজ কার্যকর হবে না।’

ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশে বদলির বিষয়টি স্বীকার করে ওসি আলমগীর বলেন, ‘আমি এখনো সেখানে জয়েন করিনি। দুই-এক দিনের মধ্যে জয়েন করব।’

স্ট্যান্ড রিলিজের বিষয়ে জানতে চাইলে আলমগীর বলেন, ‘যেহেতু আমরা এ আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে পুলিশ হেড কোয়াটার্সে একটি আবেদন করেছি। তাই সেখান থেকে কি জবাব আসে তার জন্য অপেক্ষা করছি।’

এদিকে বায়োজিদ থানার ওসি আবুল কালাম বদলির বিষয়টি প্রথমে অস্বীকার করেন।

পরে পুলিশ হেড কোয়াটার্সের পাঠানো বদলির চিঠির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ভাই বাংলাদেশে এতো ভালো ভালো নিউজ থাকতে আপনি এই তুচ্ছ বিষয় নিয়ে এত আগ্রহী কেন? এটা আমাদের ডিপার্টমেন্টাল বিষয়। আমার কাছে এটা কোনো নিউজই না। নিউজ করবেন সমাজের মানুষের উপকারে আসে এমন কিছু।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘টাকা দিয়ে বদলি ঠেকাব কেন? এটা মিথ্যা তথ্য।’

প্রিয় সংবাদ/রুহুল