ত্রাণ নিয়ে উখিয়া যেতে বিএনপিকে বাধা দেয়ার অভিযোগ

ফখরুল বলেন, ‘এই মাত্র আমাদের কাছে খবর এসেছে কক্সবাজারে আমাদের যে কেন্দ্রীয় রিলিফ টিম ২০টি ট্রাক নিয়ে গিয়েছিল জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে। তাদেরকে উখিয়াতে প্রশাসন যেতে দিচ্ছে না, পুলিশ ট্রাক আটকে দিয়েছে।’

জানিবুল হক হিরা
সহ-সম্পাদক
১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, সময় - ১৮:৪৮

উখিয়ায় বিএনপির ত্রাণের গাড়িতে আটকে দেওয়া হয়েছে।

(প্রিয়.কম) মিয়ানমার থেকে শুধু মাত্র প্রাণ নিয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে কক্সবাজার সদর থেকে উখিয়ায় যাওয়ার পথে বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদলকে মাঝপথে আটকে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার বেলা সাড়ে ৩টায় ঢাকার রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার মধ্যে কক্সবাজার থেকে ফোন পেয়ে উপস্থিত সবাইকে এ অভিযোগ জানান তিনি।

ফখরুল বলেন, ‘এই মাত্র আমাদের কাছে খবর এসেছে কক্সবাজারে আমাদের যে কেন্দ্রীয় রিলিফ টিম ২০টি ট্রাক নিয়ে গিয়েছিল জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে। তাদেরকে উখিয়াতে প্রশাসন যেতে দিচ্ছে না, পুলিশ ট্রাক আটকে দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘শুধু তাই নয়, কক্সবাজারে আমাদের বিএনপি অফিস পুলিশ ঘিরে রেখেছে। আমাদের শীর্ষস্থানীয় নেতারা অফিস ঘরে আটকা পড়ে আছেন।’

এই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিএনপির প্রতিনিধিদলকে রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দিতে সহায়তা করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপির মহাসচিব।

এই অভিযোগের বিষয়ে কক্সবাজারের স্থানীয় প্রশাসনের কোনো বক্তব্য তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি। ফখরুল বলেন, ‘এই ঘটনার মধ্য দিয়ে এই সরকারের মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে। তারা যে বলছেন তারা এই রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, এটা শুধু আইওয়াশ বলে প্রমাণিত হচ্ছে। যদি দাঁড়াতেন তাহলে তারা আজকে বিএনপির রিলিফ টিমকে উখিয়ায় অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে বাধা দিতেন না।’

এদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা রোহিঙ্গাদের নিয়ে ‘রাজনীতি’ না করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন।

কয়েক মাস আগে ও পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ত্রাণ নিতে যাওয়ার সময় বাধা পেয়েছিল মির্জা ফখরুল নেতৃত্বাধীন বিএনপি প্রতিনিধিদল।

মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে বিএনপির ওই প্রতিনিধিদলে রয়েছেন নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, এজেডএম জাহিদ হোসেন প্রমুখ।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন