নেপালের লাশ শনাক্তকরণ প্রক্রিয়ায় জটিলতা রয়েছে

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়া দীর্ঘসূত্রিতা হতে পারে বলে ধারণা করছে ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ।

মোস্তফা ইমরুল কায়েস
নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ মার্চ ২০১৮, সময় - ১৪:৫৩

ইউএস বাংলার জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম।

(প্রিয়.কম) নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় নিহতদের ময়নাতদন্ত শুরু হয়েছে। ১৩ মার্চ, মঙ্গলবার থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হলেও দেশটির কর্তৃপক্ষ যে প্রক্রিয়ায় কাজ চালাচ্ছে তাতে জটিলতা রয়েছে বলে জানায়  ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ।

১৪ মার্চ, বুধবার পৌনে ১২ টায় রাজধানীর বারিধারায় অবস্থিত ইউএস বাংলার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান প্রতিষ্ঠানটির জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম ।

এমনকি নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রিতা তৈরি হতে পারে বলেও ধারণা করছে ইউএস বাংলা।

কামরুল ইসলাম বলেন, 'নেপালের লাশ শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া অনেক দীর্ঘ। লাশ নিতে নিহতদের স্বজনদের ১৫ পাতার একটি ফর্ম পূরণ করতে হচ্ছে। তাতে লাশ শনাক্ত করা না গেলে ডিএনএ টেস্ট করার প্রয়োজন হবে। সেক্ষেত্রে নিহত ব্যক্তির স্বজন সেখানে উপস্থিত থাকা জরুরি। স্বজনরা উপস্থিত না হলে ডিএনএ টেস্টও সম্ভব হবে না। যার ফলে লাশ হস্তান্তরে একটি দীর্ঘ সময় ব্যয় হতে পারে।'

লাশ শনাক্তের জটিলতা নিরসনে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীকে অালোচনার আহ্বান জানিয়েছে ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ।

১২ মার্চ অবতরণের সময় নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ার লাইন্সের বিএস ২১১ ফ্লাইটের বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এতে ৫১ জনের প্রাণহানি ঘটে। নিহতদের মধ্যে ওই ফ্লাইটের পাইলট, ক্রুসহ ২৬ জন ছিলেন বাংলাদেশি।

প্রিয় সংবাদ/ফারজানা/গোরা

আরো পড়ুন
জনপ্রিয়