কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামেই বসেছে মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভালের এবারের আসর। ছবি: সংগৃহীত

সাগরপাড়ে ক্রিকেট জোয়ার

সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে এখানে যে উৎসব তৈরি হয়েছে, তাতে সমুদ্রের গর্জন কানে পৌঁছানোর উপায় নেই।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২ মে ২০১৮, ২২:০১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০
প্রকাশিত: ০২ মে ২০১৮, ২২:০১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০


কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামেই বসেছে মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভালের এবারের আসর। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম, কক্সবাজার থেকে) সারিসারি ঝাউবন। একটু এগোলেই বিস্তৃত সৈকত। কান পাতলে বেশ দূর থেকেই শোন যায় সাগরের উত্তাল গর্জন। কিন্তু সে গর্জন কিছুটা স্তিমিত। কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এখন ক্রিকেটের জোয়ার। সাগরপাড়ের এই স্টেডিয়ামে বসেছে তারার হাট। বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে আয়োজিত মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভাল দিয়ে এখানে যে উৎসব তৈরি হয়েছে, তাতে সমুদ্রের গর্জন কানে পৌঁছানোর উপায় নেই।

যারা এই বাংলাদেশ দলের ভিত গড়ে দিয়েছেন, যাদের ছোট ছোট লড়াই আর প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের ক্রিকেট পেয়েছে আলোকিত পথ, সেই সাবেক ক্রিকেটাররা সাগরপাড়ে মেতে উঠেছেন ক্রিকেট নিয়ে। মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, এনামুল হক মনি, আকরাম খান, নাঈমুর রহমান দুর্জয়, খালেদ মাহমুদ সুজন, খালেদ মাসুদ পাইলট, হাবিবুল বাশার সুমন, হাসিবুল হাসান শান্ত, মেহরাব হোসেন অপি, শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুতরা আবারও হাতে তুলে নিয়েছেন ব্যাট-বল।

র' ন্যাশন খুলনা মাস্টার্স। ছবি: সংগৃহীত

র' ন্যাশন খুলনা মাস্টার্স দলের সদস্যরা। ছবি: সংগৃহীত

সাবেক ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণে তৃতীয়বারের মতো আয়োজন করা হয়েছে মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভাল। ২ মে, বুধবার মাঠে গড়িয়েছে টুর্নামেন্টটি।

১০০ বলের ফরম্যাটের এই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী দিনে বুধবার সিলেট সিক্সার্স মাস্টার্সের বিপক্ষে ছয় উইকেটের জয় পায় এয়ার এশিয়া রাজশাহী মাস্টার্স। আরেক ম্যাচে ধুন্ধুমার লড়াই শেষে র’ন্যাশন খুলনা মাস্টার্সকে এক রানে হারিয়েছে বেক্সিমকো ঢাকা মাস্টার্স।

কক্সবাজার স্টেডিয়ামের মূল মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে আনিসুল হাকিমের ৫১, শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুতের ১৭ ও হাসিবুল হাসান শান্তর ১৫ রানের সুবাদে সাত উইকেটে ১১২ রান তোলে সিলেট। জবাবে আনিসুর রহমানের ৩৭ ও অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলটের ১৯ রানে ভর করে ছয় উইকেটের জয় তুলে নেয় রাজশাহী।

এয়ার এশিয়া রাজশাহী মাস্টার্স। ছবি: সংগৃহীত

খালেদ মাসুদ পাইলটের এয়ার এশিয়া রাজশাহী মাস্টার্স। ছবি: সংগৃহীত

আরেক ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করে ফয়সাল হোসেন ডিকেন্সের ৩৯। তরিকুল ইসলামের ২০ রানে সাত উইকেটে ১১৭ রান তোলে ঢাকা মাস্টার্স।

ছোট লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জয়ের পথেই হাঁটছিল খুলনা মাস্টার্স। কিন্তু শেষ বলে গিয়ে এক রানের হার মেনে নিতে হয় তাদের। নিয়াজ মোর্শেদ পল্টু ৩২, ফরিদ উদ্দিন ২৪ ও আরাফাত সালাউদ্দিন ২৪ রান করেন।

২০২০ সালে ১০০ বলের ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজনের জন্য এর আগে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে একটি প্রস্তাব দেয় কাউন্টি ক্রিকেট কর্তৃপক্ষ। এটি ইতিমধ্যে অনুমোদনও পেয়েছে। ২০২০ সালে কাউন্টি ক্রিকেটে ১০০ বলের ম্যাচ আয়োজন করা হবে।

ব্যাট করতে নামছে সিলেট সিক্সার্স মাস্টার্সের দুই ওপেনার। ছবি: সংগৃহীত

ব্যাট করতে নামছেন সিলেট সিক্সার্স মাস্টার্সের দুই ওপেনার। ছবি: সংগৃহীত

কাউন্টি ক্রিকেট অপেক্ষায় থাকলেও মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভাল শুরু করে দিয়েছে ১০০ বলের ম্যাচ। বুধবার মাঠে গড়ানো এই টুর্নামেন্টে চলছে ১০০ বলের লড়াই।

১০০ বলের এই ম্যাচে একটি ওভার ১০ বলের, যেটা প্রথম পাঁচ ওভারের পর করতে পারবে বোলিং করা দল। ১০ বলের ওভার করার প্রথম অভিজ্ঞতা হয়েছে রাজশাহী মাস্টার্সের হয়ে খেলা বাংলাদেশের সাবেক স্পিনার এনামুল হক মনির। ব্যাপারটি নিয়ে বেশ রোমাঞ্চিত তিনি।

মনি বলেন, ‘খুবই ভালো লেগেছে। যখন জানলাম ইতিহাসের প্রথম ওভার, তখন তো আরও বেশি ভালো লেগেছে। ওই ওভারে ১০ বল করেছি, ভালো লেগেছে।’

ঢাকা মাস্টার্সের হয়ে ১০ বলের ওভার করেছেন ফয়সাল হোসেন ডিকেন্স। সাবেক এই স্পিনার নিজের অনুভূতির কথা জানাতে গিয়ে বলেন, ‘নতুন অভিজ্ঞতা। এ রকম এর আগে কখনো হয়নি। বোলিং করেও ভালো লেগেছে।

দল জিতেছে, আমি ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছি। তবে আমি খুশি যে, অধিনায়ক আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। ১০ বল করার জন্য যে আস্থা প্রয়োজন, সেটা অর্জন করতে পেরেছি বলেই ভালো লাগছে।’

খুলনা মাস্টার্সের হয়ে ১০ বলের ওভার করা শাফাক আল জাবির বলেন, ‘এটা তো অবশ্যই একটা নতুন বিষয়। আমি খুশি, আমি প্রথম ম্যাচেই ১০ বল করেছি। করতে কষ্ট হয়েছে কি না, বুঝতে পারছি না। তবে জোশ নিয়ে করেছি।’

সাবেক ক্রিকেটারদের মিলনমেলার এই টুর্নামেন্ট চলবে ৫ মে পর্যন্ত। কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামেই অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল।

প্রিয় খেলা/আজহার

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

আহা, জয় এত মধুর!

প্রিয় ২ দিন, ৩ ঘণ্টা আগে

loading ...