(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় চলমান নৃশংস সেনা অভিযানে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য ১৪ হাজার আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ। ১৬ সেপ্টেম্বর শনিবার সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল। 

তিনি বলেন, ‘প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গার জন্য ১৪ হাজার আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কক্সবাজারের কুতুপালংয়ে বিদ্যমান রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের কাছে দুই হাজার একর জমিতে একটি বড়সড় শিবির নির্মাণ করা হবে।’

শাহ কামাল বলেন, ‘আমরা ১০ দিনের মধ্যে আশ্রয়গুলো তৈরি করতে বলেছি। প্রতিটি বাড়িতে ছয়টি শরণার্থী পরিবার থাকতে পারবে। নতুন শরণার্থী শিবিরটিতে যথাযথ পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, পানি সরবরাহ এবং চিকিৎসা সুবিধা থাকবে। এ জন্য জাতিসংঘের সংস্থাগুলোর কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া হবে।’

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব জানান, যেসব রোহিঙ্গা শিশু রাখাইনে বাবা-মাকে হারিয়েছে অথবা একাকী বাংলাদেশে এসেছে, তাদের দেখভাল করবে সরকারি সমাজকল্যাণ সংস্থা।

উল্লেখ্য, গত ২৪ আগস্ট রাতে রাখাইনে বেশ কিছু পুলিশ পোস্টে হামলার প্রেক্ষিতে মিয়ানমারের নিরাপত্তাবাহিনী নজিরবিহীন নৃশংস অভিযান পরিচালনা করে। খুন, কুপিয়ে-পুড়িয়ে হত্যা, ধর্ষণসহ নানাভাবে রোহিঙ্গাদের নির্যাতন অব্যাহত রাখে দেশটির নিরাপত্তাবাহিনী। যার পরিপ্রেক্ষিতে প্রায় ৪ লক্ষ রোাহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। নিহত হয়েছে প্রায় ৩ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা। জনশূন্য হয়ে গেছে প্রায় ১৭৬ টি গ্রাম।   

প্রিয় সংবাদ/শান্ত