ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে উপনির্বাচনে আগামীকাল বুধবার ভোট। নির্বাচন ঘিরে এলাকায় উৎসবমুখর পরিবেশ। এ নির্বাচনে সাতজন প্রার্থী হলেও মূল লড়াই হবে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির দুই প্রার্থীর মধ্যে। আনুষ্ঠানিক প্রচার শেষে নেতাকর্মীরা ভোটের হিসাব কষছেন। জামায়াতের ভোটব্যাংকের দিকে বেশি নজর প্রধান দুই প্রার্থীর।

২১ মার্চ মঙ্গলবার ‘নৌকা না লাঙ্গল’ শিরোনামে দৈনিক সমকালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

গত ৩১ ডিসেম্বর নিজ বাড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি মনজুরুল ইসলাম লিটন। তার মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে নৌকা ও লাঙ্গলের। দীর্ঘদিন ধরেই এ এলাকা জামায়াত-অধ্যুষিত হিসেবে পরিচিত। বর্তমান সরকার ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করলেও জাতীয় পার্টি ও জামায়াতের ভোটব্যাংক খুব বেশি পরিবর্তন হয়নি বলে মনে করেন অনেকেই। এলাকায় বিএনপির অবস্থান দুর্বল। প্রায় সাড়ে তিন লাখ ভোটারের মধ্যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৫০ হাজারের বেশি ভোট আছে। তবে অতীতে এ ভোট কখনও আওয়ামী লীগ একচেটিয়াভাবে পায়নি বলে ধারণা করা হয়।

২০০১ সালের নির্বাচনে এ আসনে জামায়াতের প্রার্থী আবদুল আজিজ জয়ী হন। ২০০৮ সালে নির্বাচিত হন জাতীয় পার্টির প্রার্থী আবদুল কাদের খান। তিনি মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনজুরুল ইসলাম লিটন নির্বাচিত হন। এর আগে ১৯৯১ সালে জাতীয় পার্টির হাফিজার রহমান প্রামাণিক এবং ১৯৯৬ সালে একই দলের ওয়াহেদুজ্জামান সরকার নির্বাচিত হয়েছিলেন।

এবার নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম মোস্তফা আহমেদ স্বচ্ছ ইমেজের কারণেই জয়ী হবেন বলে তার সমর্থকরা মনে করেন। বৃহত্তর রংপুরের এ আসনে এরশাদের জাতীয় পার্টির শক্ত অবস্থান আগের মতো নেই। এ কথা স্বীকার করছেন সুন্দরগঞ্জ পৌর শাখা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবদুল রশিদ সরকার ডাবলু। তবে তার মতে, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারীর ভাবমূর্তিও উজ্জ্বল। এ কারণেই লাঙ্গল প্রতীকের জয়ের সম্ভাবনা আছে। এমপি লিটন হত্যা মামলায় জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি কাদের খানের সম্পৃক্ততা থাকলেও তাতে ভোটে কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। কারণ কাদের খান এমপি হওয়ার পর থেকেই জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলতেন।

 

প্রিয় সংবাদ/খোরশেদ