(প্রিয়.কম) ভয়ংকর সেনা নির্যাতনের মুখে প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিজ দেশে পাঠাতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে নিজ নিজ দেশের সঙ্গে আলাপ করবেন বলে জানিয়েছেন বিভিন্নি দেশের কূটনীতিকরা। ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার বেলা ১২টায় কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবির পরিদর্শন শেষে এ বিষয়ে তারা ঐক্যমত্য পোষণ করেছেন।

রোহিঙ্গা শরনার্থীদের অবস্থা স্বচোখে দেখতে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালংয়ে পৌঁছান বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত বা প্রতিনিধিরা। কুতুপালং ক্যাম্পে অবস্থান করা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন, রোহিঙ্গাদের দুঃখ-দুর্দশার কথা শুনে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন অনেকেই। এসময় রোহিঙ্গাদের বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থান প্রশংসনীয় বলেও উল্লেখ করেন তারা। 

নাফ নদী পেরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে রোহিঙ্গারা। ছবিটি ৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে তোলা। ছবি: ফোকাস বাংলা

নাফ নদী পেরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে রোহিঙ্গারা। ছবিটি ৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে তোলা। ছবি: ফোকাস বাংলা

এর আগে বেলা সোয়া ১০টার দিকে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৬৭ আসনের প্লেনে চড়ে বাংলাদেশে অবস্থানরত ৪০টির বেশি দেশের রাষ্ট্রদূত, ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত বা প্রতিনিধি এবং জাতিসংঘের কয়েকটি সংস্থার প্রধান বেলা সোয়া ১১টার দিকে কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান।

সেখানে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন ও পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা স্বাগত জানান কূটনীতিকদের। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী’র নেতৃত্বে ওই সফরে আরো রয়েছেন প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম ও সচিব শহীদুল হক, বিআইআইএসএস চেয়ারম্যান মুন্সী ফয়েজ আহমেদ প্রমূখ।

বিকালে সফরকারীদের একই বিমানে ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/শিরিন