(প্রিয়.কম) আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কঠিন চ্যালেঞ্জ হিসেবেই নেবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তাই পাস করে আসতে পারবেন না- এলাকায় নেতা-কর্মীবিমুখ ও জনবিচ্ছিন্ন এমন এমপিদের আগামী নির্বাচনে নৌকায় না তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কেন্দ্র থেকে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে এমপিদের নির্বাচনী এলাকায়। ইতিমধ্যে ৫০ জন এমপির ব্যাপারে চরম নেতিবাচক বার্তা প্রধানমন্ত্রীর টেবিলে। এই এমপিরা এলাকা ও দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখেন না। মাঝে মাঝে ঘুরে আসেন নিজের বাড়ি থেকে। আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ কাউকেই সময় দেন না। জনপ্রিয়তাও শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে তাদের। এসব আসনের জন্য বিকল্প প্রার্থী সন্ধান করা হচ্ছে। ১৮০ জনের মতো এমপি এলাকার সঙ্গে নিয়মিত সম্পর্ক রাখেন। অনেকে শুক্র-শনিবার দুই দিন এলাকায় মাঠ চষে বেড়ান। কেউ কেউ আরও বেশি সময় এলাকায় থাকেন। নিয়মিত উঠান বৈঠকেও যোগ দিচ্ছেন। দলের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের একাধিক নেতা এমন তথ্য জানিয়েছেন।

২১ মার্চ মঙ্গলবার ‘এলাকায় যাও মনোনয়ন নাও’ শিরোনামে দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত এক সংবাদে এই তথ্য উঠে এসেছে।

দলীয় সূত্রমতে, জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে কোন কোন আসন নিশ্চিত ও অনিশ্চিত তা নির্ণয়ের কাজ চলছে। দলের হাইকমান্ড যেসব আসনের ক্ষেত্রে স্থির বিশ্বাসী হবেন, সেগুলো ছাড়া বাকিগুলো নিয়ে হিসাব-নিকাশ করা হবে। বিতর্কিত, স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে এমন এমপিরা ফের দলীয় মনোনয়ন পাবেন না। বিপরীতে উন্নয়ন, জনকল্যাণকর কাজ, দলে অবদান এবং তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি গুরুত্ব পাবে। এসব নেতাকে প্রার্থী করেই সাজানো হবে পরবর্তী নির্বাচনের ছক। আবার এলাকায় গ্রুপিং সৃষ্টি করে ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টি করা প্রার্থীদের বিষয়েও সতর্ক রয়েছে কেন্দ্র। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে হলে এলাকামুখী হও- এই বারতা দেওয়া হয়েছে দলের কেন্দ্রীয় নীতিনির্ধারক পর্যায় থেকে। ৎ

এলাকাবিমুখ এমপি ও নেতারা মনোনয়ন পাবেন না- এ কথা সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। দলের হাইকমান্ড থেকে বর্তমান এমপি ও সম্ভাব্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের বলা হয়েছে- এলাকায় যাও, মনোনয়ন নাও। এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ািম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপিদের এলাকামুখী হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, আগামীতে ক্ষমতায় আসতে হলে জনগণের মন জয় করেই আসতে হবে। এজন্য যারা এলাকাবিমুখ, নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক নেই এমন ব্যক্তিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হবে না।

 

প্রিয় সংবাদ/খোরশেদ