(প্রিয়.কম) রোহিঙ্গারা সংকট সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সংলাপের ওপর বেশি জোর দিয়েছেন বাংলাদেশ সফরত ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ)মানবিক সহায়তা ও সংকট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কমিশনার ক্রিসতোস্ত স্তিলিয়ানিদেস। ১ নভেম্বর বিকেলে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর  সঙ্গে বৈঠক শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় সব ধরনের সহায়তা অব্যাহত রাখবে ইইউ।

ক্রিসতোস্ত বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার ব্যাপারে আমি রাজনৈতিক সমাধানের ওপরই বেশি জোর দেব। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বেশ ভালোভাবেই অবগত আছে রোহিঙ্গা সমস্যার উৎস মিয়ানমারে। আমি মনে করি বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে সংলাপ চালিয়ে যাওয়া উচিত। এই ডায়ালগের ব্যাপারে আমি অনেক কিছু জেনেছি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এবং আমি সেটার সাথে একমত পোষণ করি।

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে তিনি বলেন, নিজ দেশে ফেরার মৌলিক অধিকার আছে রোহিঙ্গাদের। তাই রোহিঙ্গাদের অবশ্যই ফিরিয়ে নিতে হবে রোহিঙ্গাদের। প্রত্যাবাসন শুরু করতে ইইউ কাজ করবে।

এর আগে ৩ দিনের সফরে ৩০ অক্টোবর ঢাকায় এসেই পরের দিন সকালে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি পরিদর্শনে কক্সবাজার যান ইইউ কমিশনার ক্রিস্টোস। সেখানে রোহিঙ্গাদের দুর্দশা দেখে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নিপীড়নকে জাতিগত নিধন হিসেবে উল্লেখ করেন।

প্রসঙ্গত, ইইউ কমিশনার ক্রিস্টোসের সফরটিকে রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। মানবিক সহায়তা এবং সংকট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কমিশনার হিসেবে দায়িত্বরত থাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি। ইতোমধ্যে ইইউ মিয়ানমারের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা এবং মিয়ানমারের সেনা কর্তাদের ইউরোপ ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে। ইইউ যে আহ্বান জানিয়েছে তাতে মিয়ানমার সাড়া না দিলে দেশটিকে আরও কঠোর নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হতে পারে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত