যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের মুখোমুখি মার্ক জাকারবার্গ। ছবি: সংগৃহীত

চুরি হয়েছিল স্বয়ং জাকারবার্গের তথ্য

তবে জাকারবার্গের কী তথ্য চুরি হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

ফারজানা মাহাবুবা
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১২ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৫৯
আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ০৪:১৬


যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের মুখোমুখি মার্ক জাকারবার্গ। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারিতে ফেসবুকের ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরির ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী স্বয়ং মার্ক জাকারবার্গের তথ্যও চুরি হয়েছে। 

বিবিসির খবরে বলা হয়, ওয়াশিংটনে মার্কিন সিনেটে জিজ্ঞাসাবাদের দ্বিতীয় দিনে এই তথ্য প্রকাশ করেছেন ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ। 

কংগ্রেসওমেন আন্না ইশু জাকারবার্গকে প্রশ্ন করেন, ‘আট কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের চুরির তালিকায় আপনার ব্যক্তিগত তথ্য আছে কি না?’ তিনি আবার প্রশ্ন করেন, ‘আপনার ব্যক্তিগত তথ্য?’ জবাবে জাকারবার্গ বলেন, ‘হ্যাঁ।’

এর অর্থ হচ্ছে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা জাকারবার্গের তথ্যেও প্রবেশ করেছে, যা সাধারণত সম্ভব নয় সাধারণ কারো জন্য। তবে জাকারবার্গের কী তথ্য চুরি হয়েছে, সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। 

এর আগে ১০ এপ্রিল, মঙ্গলবার ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ মার্কিন সিনেটের বাণিজ্য ও বিচারবিভাগীয় কমিটির সামনে এফবিআই-প্রধান রবার্ট মুলার ফেসবুকের কর্মীদেরও জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। 

জাকারবার্গ মার্কিন সিনেটরদের জবাবদিহিতার সময় ডেমোক্রেটিক শন পেট্রিক লেথির প্রশ্নের জবাবে জানান, রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ নিয়ে তদন্তে থাকা স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলার ফেসবুকের কর্মীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন, তবে তাদের মধ্যে তিনি নিজে ছিলেন না।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য রাজনৈতিক কাজে ব্যবহারের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের মুখোমুখি হয়ে পাঁচ ঘণ্টা জবাবদিহি করেন মার্ক জাকারবার্গ। 
 
এ সময় জাকারবার্গ তথ্য বেহাতের ঘটনার দায় নিজের কাঁধে নেন এবং দুঃখ প্রকাশ করেন। জাকারবার্গ বলেন, ‘এটা স্পষ্ট যে, ফেসবুকের সুবিধাগুলো ক্ষতিকর কাজে ব্যবহার বন্ধে আমরা যথেষ্ট ব্যবস্থা নিইনি।’

যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ও সামরিক তথ্য বিশ্লেষণী সংস্থা ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে কয়েক কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য অবৈধভাবে ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে গত মাসে।

প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছিল, ৫০ মিলিয়ন তথা পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করেছে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা। কিন্তু নতুন তথ্য বলছে, এই ঘটনায় আরও বেশি পরিমাণ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করেছে সংস্থাটি।

পরে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ জানান, তাদের হিসাব-নিকাশ বলছে এই তথ্য চুরির ঘটনায় সর্বোচ্চ আট কোটি ৭০ লাখ মানুষের তথ্য চুরি হয়েছে। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বন্ধু তালিকার সর্বোচ্চ সীমা বিবেচনা করে এই ফলাফল পেয়েছেন তারা।

প্রিয় প্রযুক্তি/আজাদ চৌধুরী

 

 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ ধনী মার্ক জাকারবার্গ
বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ ধনী মার্ক জাকারবার্গ
বাংলা ট্রিবিউন - ৫ মাস, ১ week আগে
আর কত ক্ষমা চাইবেন মার্ক জাকারবার্গ?
আর কত ক্ষমা চাইবেন মার্ক জাকারবার্গ?
প্রথম আলো - ৬ মাস, ৩ সপ্তাহ আগে