(প্রিয়.কম) চিনি খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর- এই ব্যাপারটি সকলেই জানি। যে কারণে অনেকেই চেষ্টা করে থাকেন সরাসরি চিনি ও চিনিযুক্ত খাদ্য যেন বেশী গ্রহণ করা না হয়। তবে একটা ব্যাপার জেনে অবাক হবেন যে, আপনার প্রিয় ও পরিচিত কিছু খাদ্য উপাদান রয়েছে, যেগুলতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে চিনি। হয়তো এই সকল উপাদানের মাঝে কিছু উপাদানের ব্যাপারে আপনি আগে থেকেই জানতেন। তবে এই সকল খাদ্য উপাদানে চিনির মাত্রা, আপনার ধারণার চাইতেও বেশী। দ্যা আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন প্রতিদিন চিনি গ্রহণের মাত্রা নির্ধারন করে দিয়েছে, যা একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের জন্য স্বাস্থ্যকর। পুরুষদের জন্য সেটা ৩৬ গ্রাম এবং নারীদের জন্য সেটা ২৪ গ্রাম! তবে বেশীরভাগ সময়েই চিনি গ্রহণের মাত্রা এর চাইতেও বেশী হয়ে যায়। যে কারণে হার্টের সমস্যা, ডায়বেটিসের সমস্যা সহ নানান ধরণের সমস্যা দেখা দেওয়া শুরু করে। এখানে এমন কিছু খাদ্য উপাদানের নাম তুলে ধরা হলো, যেগুলোতে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি চিনি থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য ঝুকিপূর্ণ।

সালাদ ড্রেসিং

ক্রিমি ফ্যাট-ফ্রি অথবা লো-ফ্যাটযুক্ত সালাদ ড্রেসিং খাওয়া স্বাস্থ্যকর মনে হতে পারে, বিশেষ করে যখন আপনি ডায়েট করছেন। কিন্তু জেনে অবাক হবেন যে, কিছু সালাদ ড্রেসিং-এ মাত্র দুই টেবিল চামচেই রয়েছে ১২ গ্রাম পরিমাণ চিনি। যে কারণে, সালাদ খেতে চাইলে সালাদ ড্রেসিং ছাড়া সালাদ তৈরি করা উচিৎ।

স্পোর্টস এবং এনার্জি ড্রিংক্স

অনেকে জিমে ওয়ার্কআউট করার পর অথবা বাইরে ৬০ মিনিট ধরে দৌড়ানোর পর স্পোর্টস অথবা এনার্জি ড্রিংক্স পান করে থাকেন। অনেক নিতান্ত শখের বশেই এই সকল পানীয় পান করে থাকেন। কিন্তু জেনে রাখা প্রয়োজন, একজনের পান করার মতো এই সকল পানীয়তে থাকে ১৪ গ্রাম ও ততোধিক পরিমাণে চিনি। যারা ওজন কমাতে চাচ্ছেন এবং জিমে কষ্ট করছেন, তাদের জন্য এই সকল পানীয় এড়িয়ে যাওয়া উত্তম।

নন-ডেইরী দুধ

প্রাকৃতিক গরুর দুধ ল্যাকটোজ থেকে প্রাকৃতিক চিনি তৈরি করে থাকে। তবে নন-ডেইরী সকল ধরণের দুধের মাঝেই থাকে অনেক বেশী চিনি। উদাহরণ স্বরূপ বলা যেতে পারে, সয়া দুধে রয়েছে ১৪ গ্রামের চাইতেও বেশী চিনি। যদি আপনি গরুর দুধ এড়িয়ে যেতে চান এবং অন্যান্য নন-ডেইরি দুধ পান করতে চান তবে সেক্ষেত্রে ভালোভাবে দেখে দুধ নির্বাচন করা প্রয়োজন। 

স্মুদি

যে কোন কোমল পানীয়ের চাইতে ফল অথবা সবজীর স্মুদি অনেক অনেক স্বাস্থ্যকর বলেই আমরা জানি। স্ট্রীট-স্মার্ট-নিউট্রিশন.কম এর এমএস,আরডি কারা হার্বস্ট্রিট বলেন, "স্মুদি হলও চিনি আরেকটি উৎস। স্মুদির চিনি উপস্থিতির কথা আমরা একেবারেই ভুলে যাই কারণ স্মুদি স্বাস্থ্যকর ফল ও সবজী দিয়ে তৈরি করা হয়।" কিছু কিছু স্মুদিতে ৬০-৭০ গ্রাম পর্যন্ত চিনি পাওয়া গেছে বলেও জানান হার্বস্ট্রিট।

শুকনো ফল (ড্রাইড ফ্রুটস)

ফল হলো প্রাকৃতিক চিনির অন্যতম উৎস। কিন্তু এতে চিনির সাথে রয়েছে স্বাস্থ্যকর ভিটামিন, মিনারেলস এবং আঁশ। তাহলে শুকনো ফলের ক্ষেত্রে কী সমস্যা হতে পারে? বিল্ড-মাই-বডি-বিউটিফুল এর আরডি আলিশা কগলার জানান, শুকনো ফল খেতে স্বাস্থ্যকর মনে হলেও, এতে রয়েছে একটি ক্যান্ডিবারের সমপরিমাণ চিনি! যে কারণে তাজা কোন ফল খাওয়া স্বাস্থ্যকর হলেও, শুকনো ফল খাওয়া এড়িয়ে যাওয়াই হবে বুদ্ধিমানের মতো কাজ।

স্ন্যাক বার

আপনি হয়ত নিজের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে ক্যান্ডিবার না কিনে স্ন্যাকবার কিনেছেন খাওয়ার জন্য। স্ন্যাকবারে লেখা রয়েছে স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিকর খাদ্য। এতে রয়েছে আঁশ, ভিটামিন, মিনারেলস প্রভৃতি। তবে এইসকল স্ন্যাকবারে রয়েছে অনেক বেশী ক্যালোরি। একজনের খাওয়ার মতো স্ন্যাকবারে রয়েছে ২০ গ্রাম পরিমাণ চিনি এবং ২০০-২৫০ ক্যালোরি, জানান কগলার। কিছু কিছু স্ন্যাকবারে থাকে অনেক কম আঁশ ও উচ্চমাত্রার চিনি। যা রক্তে চিনির মাত্রা হুট করে অনেক বাড়িয়ে দিতে পারে।

বোতলজাত সস

কগলার জানান, বোতলজাত যে কোন ধরণের সসে অবিশ্বাস্য বেশী পরিমাণে চিনি থাকে। শুধুমাত্র এই টেবিল চামচ বারবিকিউ সসে রয়েছে ১৬ গ্রাম পরিমাণ চিনি। যা চার চা চামচ চিনির সমপরিমাণ।

পাউরুটি

অনেকেই ডায়েট করার জন্য ভাত বাদ দিয়ে পাউরুটি খাওয়ার অভ্যাস শুরু করেন। সেক্ষেত্রে জেনে রাখা জরুরি, যে কোন ভালো মানের পাউরুটি তৈরিতে প্রয়োজন হয় উচ্চমাত্রার শর্করাযুক্ত কর্ন সিরাপ। সকল ধরণের পাউরুটিতে অনেক বেশী মাত্রাত চিনি না থাকলেও, বেশীরভাগ পাউরুটি তৈরিতে চিনি প্রয়োজন হয়ে থাকে।

সকালের নাস্তার সিরিয়াল

এই ব্যাপারটি হয়তো সকলেই জানি আমরা। বাচ্চাদের জন্যে তৈরি করা রঙ্গিন সিরিয়াল তৈরি করা হয় প্রচুর পরিমাণে চিনি দিয়ে। কগলার জানান, সকালে আধা কাপ পরিমাণ সিরিয়াল গ্রহণে সারাদিনের জন্য যতটুকু চিনি প্রয়োজন, তার প্রায় অর্ধেকটাই পূরণ হয়ে যায়।

ফ্রোজেন খাবার

বেশীরভাগ মানুষের বাসাতেই ফ্রোজেন বিভিন্ন ধরণের খাবার পাওয়া যাবে। কারণ প্রয়োজনের সময়ে খুব দ্রুত বানিয়ে ফেলা সম্ভব হয়। কিন্তু এই সকল খাবার কি স্বাস্থ্যকর? কিছু কিছু ফ্রোজেন খাবারে একজনের মতো পরিবেশনযোগ্য পরিমাণে ২০-৪০ গ্রাম পরিমাণ চিনি থাকে বলে জানান কগলার। এই সকল খাবারে চিনি থাকার মূল কারণ হল, খাবার প্রস্তুতের সময়ে এইসকল খাবার থেকে স্নেহ ও চর্বি সরিয়ে ফেলা হয়।

সূত্রReader’s digest

প্রিয় লাইফ/ আর বি