জন্মদিনে জেনে নিন সিদ্ধার্থের কিছু অজানা বিষয়

বর্তমানে অসাধারণ জীবনযাপন করছেন এই তারকা। জানা গেছে, তার জন্মদিনের প্রথম প্রহরে করণ জোহরের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বলিউডের অনেক শিল্পী।

শামীমা সীমা
সহ-সম্পাদক
১৬ জানুয়ারি ২০১৮, সময় - ১৯:০৮

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) এমনিতে তিনি নাকি খুব লাজুক প্রকৃতির ছেলে। কিন্তু সিনেমার পর্দায় তার ছিটেফোঁটাও লক্ষ্য করা যায়নি। তার অভিনয়ে মেয়েদের মধ্যে যেমন উন্মাদনা, তেমনি তার পুরুষ ভক্তও কম নয়। তরুণ প্রজন্মের দারুণ জনপ্রিয় অভিনেতা সিদ্ধার্থ মালহোত্রার আজ জন্মদিন। ৩৩-এ পা রাখলেন বলিউডে ‘জেন্টলম্যান’ খ্যাত এই অভিনেতা। জন্মদিনে তার জীবনের অজানা বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হলো প্রিয়.কমের পাঠকদের কাছে। 

১৯৮৫ সালের ১৬ জানুয়ারি দিল্লির এক পাঞ্জাবি পরিবারে জন্ম নেন সিদ্ধার্থ। ১৮ বছর বয়সে মডেলিংয়ের মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু তার। পাশাপাশি সহকারী পরিচালক হিসেবেও কাজ করতেন সিদ্ধার্থ।

২০১০ সালে করণ জোহরের ‘মাই নেম ইজ খান’ সিনেমায় পরিচালকের সহকারী হয়ে কাজ করেন সিদ্ধার্থ। সে পরিশ্রম বৃথা যায়নি। ২০১২ সালে ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবিতে করণের পরিচালনায় অভিনয়ের সুযোগ পান তিনি। তারকা বাবার তারকা সন্তান বরুণ ধাওয়ান ও আলিয়া ভাটের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অভিনয় করে প্রশংসিত হন সাধারণ পরিবারের ছেলেটি। অসাধারণ অভিনয়ের সুবাদে সেরা নবাগত অভিনেতার পুরস্কার জিতে নেন সিদ্ধার্থ। আর তাই তো বর্তমানে অসাধারণ জীবনযাপন করছেন এই তারকা।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, সিদ্ধার্থের জন্মদিনের প্রথম প্রহরে করণ জোহরের পাশাপাশি বলিউডের অনেক শিল্পী উপস্থিত ছিলেন।

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। ছবি: সংগৃহীত। 

স্কুল লাইফে বাস্কেট বল আর বন্ধুদের সঙ্গে মারামারি, এই দিয়েই জীবনে ‘অ্যাডভেঞ্চার’ শুরু সিদ্ধার্থের। তিনি ‘জেন্টলম্যান’-এর মতো দেখতে হলেও, আসলে নাকি বেশ ‘ডেয়ারডেভিল’। জীবনে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতেই পছন্দ বলিউডের এই হার্টথ্রবের। সোশ্যাল মিডিয়ায় তারই শেয়ার করা কয়েকটি ছবি ও ভিডিও প্রমাণ করে, বাস্তব জীবনে তিনি কতটা ঝুঁকি নিতে পছন্দ করেন।

সি সার্ফিং করতে অসম্ভব ভালোবাসেন সিদ্ধার্থ। কিছুদিন আগেই চলে গিয়েছিলেন মায়ামিতে। সেখানেই বড় বড় ঢেউয়ের ওপর সার্ফ করতে দেখা গিয়েছিল এই অভিনেতাকে। 

সিদ্ধার্থ একজন সত্যিকারের প্রকৃতিপ্রেমী ও ওয়াইল্ড লাইফ ট্র্যাভেলার। নিউজিল্যান্ডের আকারোয়া দ্বীপে ডলফিনদের সঙ্গে সাঁতার কাটেন সিদ্ধার্থ। গ্রীষ্মে গরমের হাত থেকে রেহাই পেতে ‘অ্যাকুয়া ট্রেনিং’ তার সবচেয়ে পছন্দ। ফিট থাকতেই পছন্দ এই অভিনেতার। তাই জিম সেশন ভুলেও বাদ দেন না। যদি জিমে যাওয়ার সময় না পান, তাহলে বাড়িতেই করে ফেলেন ফিটনেস ট্রেনিং। পাহাড়ি রাস্তায় বাইক-সাইকেলে ঘুরে বেড়ানো সিদ্ধার্থের সবচেয়ে প্রিয় খেলা। ঘোড়া চালানোও শিখে নিয়েছেন সিদ্ধার্থ। আসন্ন ছবি ‘রিলোড’-এ তাঁকে হর্সরাইড করতে হবে। বন্ধু জ্যাকলিন ফার্নান্দেজই নাকি এই ঘোড়া চালানো শেখার অনুপ্রেরণা। 

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। ছবি: সংগৃহীত। 

প্রথম সিনেমায় নজর কাড়ার পর বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সুদর্শন অভিনেতা হিসেবে জায়গা করে নেন সিদ্ধার্থ। একে একে সুপারহিট নির্মাতাদের কাছ থেকে অভিনয়ের প্রস্তাব পেতে থাকেন তিনি। পরিচালকদের হতাশও করেননি নায়ক। তার প্রতিটি সিনেমা ব্যবসাসফল। তার গ্ল্যামার, অভিনয় দক্ষতা, প্রেম-ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে দর্শকদের উৎসাহও কোনও অংশে কম নয়।

খুব শিগগিরই মুক্তি পেতে চলেছে নীরজ পাণ্ডের ছবি ‘আইয়ারি’। সেখানে একজন সেনা অফিসারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সিদ্ধার্থ। ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি।

সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

প্রিয় বিনোদন/গোরা 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন