প্রচারসর্বস্ব দান আর কত?

দানে বাড়ে মান, পাবেন আপনি সম্মান। সে সম্মানটা যেন ছোট্ট একটু প্রচারণার ভুলে ধূলিসাৎ না হয়। কথায় নয় বড় হতে হবে কাজে।

রিফাত কান্তি সেন
সাংবাদিক/কলামিষ্ট
১৩ জুন ২০১৮, সময় - ২১:০৪

প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) দানে নাকি বাড়ে মান। আবার সে দান যদি করে গোপন তবেই মিলিবে খোদার নিকট থেকে রতন। দান করা একটি মহৎ গুণ যেমন, তেমনি সে দান নিয়েও রয়েছে কিছু বিধি-বিধাণ। প্রযুক্তি আমাদের জীবনকে সহজ করে দিয়েছে। প্রযুক্তির বদৌলতে মানুষ এখন খুব সহজেই পরিচিতি বাড়াতে পারছে। বিশেষ করে পরিচিতির মোক্ষম হাতিয়ার এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, পত্রিকা আর চামচা। খুব সহজেই সস্তা জনপ্রিয়তা লাভের একটা বিশাল সুযোগ থাকে সেখানে। বিশেষ করে দিবস ভিত্তিক হিড়িক পড়ে দানের। আবার কেউ কেউ মানুষের মানবতাকে পুঁজি করেও চালাচ্ছে প্রচারণা। দানের নামে নিজেদের প্রচারটাই হচ্ছে বেশি। আবার এ প্রচারণাটা যে ফ্রি এমনও নয়। সেখানেও গুণতে হচ্ছে পয়সা। তবে কী গরীবকে পুঁজি করে প্রচারণার চমৎকার মাধ্যম এটি। গ্রাম থেকে শুরু করে শহর-বন্দর এমনকী প্রত্যান্তঞ্চলেও এখন দানের নামে কিছু লোক নিজেদের প্রচারণা করছে। মানুষের আবেগকে কাজে লাগিয়ে উদারতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করতেই যেন মরিয়া তারা। অথচ ধর্মেও উল্লেখ আছে, ‘যদি তুমি তোমার ডান হাতে দান করো তবে যেন বাঁ হাত টের না পায়।’ এখন তো দুনিয়াও টের পায়। হ্যাঁ বিষয়টি পজেটিভ ও ভাবা যায়। কিন্তু প্রচারসর্বস্ব দান না করিলে নয় কী? আপনার দানের প্রচারণার কারণে তো অন্যে ব্যক্তির সম্মানেও আঘাত লাগতে পারে, সেটা কী ভেবেছেন।

দান করুন নীরবে, সত্যিকারের মানবিকতাকে কাজে লাগিয়ে, নিজেকে মানুষের মাঝে উজাড় করে দিয়ে। আপনার দান যেন না হয় মানুষের ভোগান্তির কারণ সেদিকেও নজর রাখা উচিত। হাঁক-ডাক বাজিয়ে দান না করে, নীরবে নিভৃতে দান করলে সেটাই বরঞ্চ স্রষ্টার নিকট অতি সম্মান পাওয়ার একমাত্র উপায় হতে পারে। আজকাল দেখা যায়, বিভিন্ন লোকে কিছু একটা দান করলে সঙ্গে সঙ্গে সেটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে নিজের দানের প্রচারণা করে থাকে। কয়েকবছর আগে একজন বলছিল তাদের দানের নিউজটি যেন আমি কভার করি। আমি নেহাত অবাক হলাম এ ভেবে যে আসলেই কী তারা স্রষ্টার নৈকট্য লাভের আশায় দান করছে? নাকি এ নিয়ে চলছে কোন রাজনীতি।

আবার অনেকে দেখা যায় দাতাকে খুশি করতে সে দানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে, ক্যাপশন লিখেন, ‘অমুক ভাইয়ের উদারতার গল্প, অমুক ভাই জনদরদী, অমুক ভাইয়ের চরিত্র-ফুলের চেয়েও পবিত্র’। আসলে তখনই সন্দেহ আসে লোকের মনে। এরা সত্যিকারের দান করছে? নাকি দানের নামে নিজের স্বার্থ হাছিল করছে। আবার কেউ কোনোরকমে কয়েকজনকে কিছু দান করে সেটা যেভাবে ফলাও করে প্রচার করাচ্ছে তাতে যেন মনে হয় আমরা আর প্রাচীনযুগে নই আধুনিক যুগেই আছি, তাইতো প্রচারণার উদ্দেশ্যটা হারে হারে বুঝেছি। আবার দান করতে গিয়ে অনেক দানবীরের পকেট ফাঁকা করেন, দান প্রদানকারীরা। যারা দানের প্রচারের নামেও হাতাচ্ছেন মোটা অংকের অর্থ। কেউ কেউ তো গরীবকে পুঁজি করে নিজের পকেট ভারি করার জন্য উত্তম সময় খুঁজে বেড়ান। সত্যিকারের গরীবদের ভাগ্যে দানের মাল জুটেছে কী না সে নিয়ে থেকে যায় সন্দেহ। অবশ্য প্রচারণার সময় ঠিকই কভারেজ করা হয়, অমুক ভাই, তমুক ভাইয়ের দরিদ্রদের জন্য বিশাল দানের ব্যবস্থা। কয়েক দিন আগে টিভিতে দেখলাম দান আনতে গিয়ে হুড়াহুড়ি করতে গিয়ে মানুষের মৃত্যু। কত নির্মম হতে পারে এসব মৃত্যু! ঈদ, পূজা, পার্বণ আর কিছু সংখ্যক লোক গরীব লোকদের পুঁজি করে বছরের কিছু সময় দানশীলের ভূমিকায় থেকে নিজেদের দানের চেয়ে প্রচারণার মাত্রাটা ভারি করেন।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এ দানের প্রচারণা থেকে কবে মিলবে সমাজের এসব মানুষগুলোর। যেহেতু ধর্মীয় গ্রন্থগুলোতেও উল্লেখ আছে দান করতে হয় নীরবে, লোক দেখিয়ে নয়। সে চিন্তা চেতনা থেকে কবে মুক্তি মিলবে। কবে সত্যিকারের মানুষের জন্য আমরা কাজ করতে পারবো?কবে মন থেকে মানুষকে আপন করে নিতে পারবো? কবে ধনি-দরিদ্রের বৈষম্য থেকে মুক্তি পাবো? সেগুলো এখন প্রশ্ন হয়ে দাড়িয়েছে।দান করে সে ছবি পত্রিকার পাতায় উঠানোর চিন্তা থেকে কবে মুক্তি মিলবে আমাদের, কবে আমরা সত্যিকারের স্রষ্টার আনুগত্য লাভ করবো সেটাও এখন দেখার বিষয়। আমাদের উচিত সে সমস্ত প্রচারণাগুলো বাড়ানো, যেসব প্রচারণায় মানুষের কল্যাণে নিবেদিত, প্রচারণা বাড়ানো উচিত রক্তদানসহ জনসচেতনামূলক কর্মকাণ্ডগুলোর। দানে বাড়ে মান, পাবেন আপনি সম্মান। সে সম্মানটা যেন ছোট্ট একটু প্রচারণার ভুলে ধূলিসাৎ না হয়। কথায় নয় বড় হতে হবে কাজে। মানুষের মাঝে সত্যিকারের অর্থে নিজেকে বিলিয়ে দেয়ার মাঝে খুঁজে ফিরতে হবে মানবিকতাকে। এগিয়ে আসতে হবে অসহায় মানুষের পাশে। লোক দেখানো দান না করে সে দানের মর্ম বুজার তৌফিক সৃষ্টিকর্তা আপনার আমার মাঝে বিলিয়ে দিক। সত্যিকারের মানবিকতা ফিরে আসুক মানুষের মাঝে সেটাই কামনা।

[প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। প্রিয়.কম লেখকের মতাদর্শ ও লেখার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত মতামতের সঙ্গে প্রিয়.কমের সম্পাদকীয় নীতির মিল না-ও থাকতে পারে।]

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
শোলাকিয়ায় দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত
শোলাকিয়ায় দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত
বাংলা নিউজ ২৪ - ১ দিন, ১৫ ঘণ্টা আগে
ষাটগম্বুজ মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত
ষাটগম্বুজ মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত
বাংলা নিউজ ২৪ - ১ দিন, ১৭ ঘণ্টা আগে
মাগুরার নোমানী ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত
মাগুরার নোমানী ময়দানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত
বাংলা নিউজ ২৪ - ১ দিন, ১৭ ঘণ্টা আগে
শোলাকিয়া ঈদগাহের নিরাপত্তায় ড্রোন
শোলাকিয়া ঈদগাহের নিরাপত্তায় ড্রোন
বাংলা নিউজ ২৪ - ২ দিন, ৬ ঘণ্টা আগে
প্রস্তুত শোলাকিয়া ঈদগাহ, ঈদের জামাত সকাল ১০টায়
প্রস্তুত শোলাকিয়া ঈদগাহ, ঈদের জামাত সকাল ১০টায়
বাংলা নিউজ ২৪ - ২ দিন, ৮ ঘণ্টা আগে
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন