‘বিয়ের আগে শুটিংয়ে আসার তাড়া থাকত, এখন বাড়ি ফেরার তাড়াও থাকে’

এবার প্ল্যান হচ্ছে ২৭ রোজার পর কোনো শুটিং করব না, তখন শপিং করব...

শিবলী আহমেদ
সহ-সম্পাদক
১৭ মে ২০১৮, সময় - ১৩:০৫

অভিনেতা তৌসিফ মাহবুব। ছবি: শামছুল হক রিপন/প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) সময়ের ব্যস্ততম তরুণ নাট্যাভিনেতা তৌসিফ মাহবুব। টানা তিন বছরের প্রেমের সম্পর্কের পর প্রেমিকা জান্নাতুল ফেরদৌসকে বিয়ে করেছেন চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি।

গত ১৫ মে, মঙ্গলবার উত্তরার শুটিং বাড়ি স্বপ্নিল-২-এ দেখা হলো তার সঙ্গে। সেখানে চলছিল মাবরুর রশীদ বান্নাহ’র পরিচালনায় নাটক ‘ছাত্র’-এর শুটিং। এ নাটকে অভিনয় করছেন তৌসিফ।

শটের শেষে কিছুটা অবসরে তৌসিফের সঙ্গে কথা হয় প্রিয়.কমের। সেই আলাপনে উঠে আসে তার ঈদের প্ল্যান, শপিং এবং বিয়ের আগের ও পরের ঈদের প্রসঙ্গ।

প্রিয়.কম: এবারে ঈদে প্ল্যান কী?

তৌসিফ: প্ল্যান হচ্ছে এই ঈদটা যেন আগের ঈদের মতো না হয়। কারণ বিয়ের আগের ঈদগুলো আমি ঘুমিয়ে কাটিয়েছি। ঈদে অনেক প্রেসার থাকে। এমনও হয়েছে যে ঈদের নামাজের আগে বাসায় ফিরেছি শুটিং করে। আবার এমনও হয়েছে যে ঈদের দ্বিতীয় দিন শুটিং করেছি। এবার ওরকম কিছু করার ইচ্ছা নেই। এবার ইচ্ছা আছে ঈদের দুই-তিনদিন আগেই ব্রেক নিয়ে নেব, যাতে ঈদটা আমি পরিবারের সঙ্গে কাটাতে পারি।

প্রিয়.কম: বিয়ের পর প্রথম ঈদ। স্ত্রীকে স্পেশাল গিফট কী দেবেন?

তৌসিফ: এটা তো বলে দিলে আর স্পেশাল থাকবে না। কিন্তু হ্যাঁ, স্পেশাল কিছু অবশ্যই দেওয়ার ইচ্ছা আছে। প্ল্যান আছে এবং প্ল্যান সাকসেসফুল হবে। ইচ্ছা আছে ঈদে যেহেতু একটা লোড যায়, তো ঈদের পর পরিবারকে তিন-চার দিন সময় দিয়ে, তারপর ঢাকার বাইরে বা দেশের বাইরে দুজনে একটু ঘুরে আসব।

অভিনেতা তৌসিফ মাহবুব। ছবি: শামছুল হক রিপন/প্রিয়.কম

প্রিয়.কম: এবার ঈদে দর্শক আপনার কাছ থেকে বিশেষ কোন নাটকটি দেখতে পাবে?

তৌসিফ: ঈদের অনেকগুলো কাজ করলাম। আরটিভির, বাংলাভিশনের। এবার আগের চেয়ে অনেক বেশি কাজ করছি, আমার কাছে আসছে বেশি কাজ। কোন কাজটা দিয়ে আমি পয়েন্ট করব সেটা আমি এখনো বলতে পারছি না, কারণ এখনো ঈদের একমাস বাকি। এই এক মাসে কী কী ঘটে যায়, কী কী কাজ হবে সেটা আসলে ঠিকঠাক জানি না। তবে এ পর্যন্ত যেগুলো করতাম, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য তিন চারটা ভালো কাজ আছে।

প্রিয়.কম: ভালো কাজগুলো কী কী?

তৌসিফ: ‘ফাহিম দ্য গ্রেট ফাজিল’ নামের একটা কমেডি নাটক, এটা খুব ভালো হবে আশা করি। ‘টানাপোড়েন’ নামে একটা কাজ করেছি, সেটাও বেশ ভালো। ‘কাছে আসার পরে’, আর এখন শুটিং হচ্ছে ‘ছাত্র’, এ চারটি আমার কাছে মার্ক করার মতো। আর সামনে কী হয়, সেটা আসলে কাজ করার পর বলতে পারব।

প্রিয়.কম: ঈদের শপিং শুরু করেছেন?

তৌসিফ: না, করিনি। আগে যেটা করতাম যে, চাঁদরাতে শপিং করতাম এবং খুব বাজে হতো শপিংয়ে। এবার প্ল্যান হচ্ছে ২৭ রোজার পর কোনো শুটিং করব না, তখন শপিং করব।

প্রিয়.কম: বৈবাহিক জীবনের সঙ্গে শুটিং ব্যস্ততার কোনো ক্ল্যাশ হচ্ছে কী?

তৌসিফ: না, শুটিংয়ের সঙ্গে কোনো ক্ল্যাশ হচ্ছে না। যেটা হচ্ছে সেটা হলো আমার বারোটা বেজে যাচ্ছে। আগে আসলে শুটিংয়ে আসার তাড়া থাকত, বাসায় যাওয়ার কোনো তাড়া থাকত না। এখন শুটিংয়ে আসার তাড়াও থাকে, বাসায় যাওয়ার তাড়াও থাকে। তো আমাকে দুদিকেই সামাল দিতে হচ্ছে যাতে কোনোদিকই ঝুলে না পড়ে। সে ক্ষেত্রে আমার হালুয়া টাইট হয়ে যাচ্ছে।    

প্রিয় বিনোদন/গোরা 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন