(প্রিয়.কম) বাংলাদেশে প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ঢাকা পর্বের শুরু থেকেই মিরপুরের উইকেট নিয়ে ক্রিকেটারদের অসন্তোষ। সিলেট ও চট্টগ্রামে রানবন্যা দেখা গেলেও মিরপুরে রীতিমতো রানখরায় ভুগছেন ব্যাটসম্যান। দুয়েকটি ম্যাচ ছাড়া অধিকাংশ ম্যাচই হয়েছে লো স্কোরিং। দেশি ক্রিকেটার থেকে শুরু করে বিদেশি ক্রিকেটার পর্যন্ত শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেট নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

উইকেট নিয়ে ক্রিকেটারদের অসন্তোষ না কাটতেই নতুন করে প্রশ্ন উঠেছে আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে। বুধবার লিগ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচের পর উইকেটের পাশাপাশি আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়েও আপত্তির কথা জানান রংপুর রাইডার্সের ওপেনার ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। মারকুটে এই ব্যাটসম্যানের পর আম্পায়ারিং নিয়ে ক্ষোভ জানালেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন

অনেক অনভিজ্ঞ আম্পায়ার দিয়ে বিপিএলের মতো জনপ্রিয় একটি ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্টে ম্যাচ পরিচালনা করা হয় উল্লেখ করে কুমিল্লার এই কোচ বলেন, ‘অনেক আম্পায়ার ছিল যারা মনে হয় না এর আগে কখনো এই লেভেলে আগে আম্পায়ারিং করেছে। আশা করব আমাদের দেশে যারা ভালো আম্পায়ার আছে তাদেরকে দিক।দরকার হলে বাইরে থেকে ভালো আম্পায়ার নিয়ে আসুক।’

গত শনিবার ঢাকায় ফিরতি পর্বের প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের মুখোমুখি হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ওই ম্যাচে রংপুরকে মাত্র ৯৭ রানে গুটিয়ে দেয় তামিম ইকবালের কুমিল্লা। এই রান তাড়া করতে নেমেও খুব একটা স্বস্তিতে ছিল না কুমিল্লা। জয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছিল শেষ ওভার পর্যন্ত, হারাতে হয়েছিল ছয় উইকেট। একই সঙ্গে সমালোচিত হচ্ছে অনফিল্ড আম্পায়ারদের দেওয়া বিভিন্ন সিদ্ধান্ত।

উইকেট, আম্পায়ারিং নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে নিজেদের খেলার দিকে মনোযোগ রাখছেন তামিম-ইমরুল-লিটনদের কোচ। তবে বিপিএলের মতো একটা টুর্নামেন্টে ভাল আম্পায়ারিং হবে এমনটাই আশা করেন সালাহউদ্দিন, ‘কিছু জিনিস আছে যেটা আমাদের নিয়ন্ত্রণ করার কিছু নাই। এখন আম্পায়ারিং কেমন করবে, উইকেট কেমন হবে এটা নিয়ে চিন্তা করে আমাদের খেলা খারাপ করার কোনো দরকার নাই। আমরা আশা করব, এই ধরনের টুর্নামেন্টে ভালো আম্পায়াররা আম্পায়ারিং করবে।’

প্রিয় স্পোর্টস/কামরুল