(প্রিয়.কম) জয় তুলে নিতে প্রয়োজন ছিল ছয় রান। ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ক্যারিবিয়ান ঝড় তুলে ছয় হাঁকালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারলন স্যামুয়েলস। তাতে করেই চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ছয় উইকেটের জয় তুলে নিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। মাঠে নেমেই ঝড় তোলা শুরু করেছিলেন স্যামুয়েলস। কিন্তু আসল কাজটা করেছেন ইমরুল কায়েস ও জস বাটলার।

বুধবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ভাইকিংসদের ১৩৯ রানের লক্ষ্য জয় করতে নেমে রোববারের মতো ইমরুল-বাটলার জুটিতেই জয় পেল কুমিল্লার দলটি। দুজনে যথাক্রমে ৪৫ ও ৪৪ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন। ইংলিশ ব্যাটসম্যান বাটলারকে নিয়ে এদিন ৭৪ রানের জুটি গড়েন বাংলাদেশি ওপেনার ইমরুল।

এই ম্যাচেই চলতি বিপিএলে প্রথমবারের মতো মাঠে নামলেন ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। কিন্তু ব্যাট হাতে ফেরাটা সুখকর হয়নি কুমিল্লা দলের এই ক্রিকেটারের। ব্যক্তিগত চার রানের মাথায় দিলশান মুনাবীরার বলে আউট হন তিনি। আরেক ওপেনার লিটন কুমার দাস খেলেছেন ১৭ রানের ইনিংস।

শেষদিকে উইকেটে নেমে টি-টোয়েন্টি মেজাজ দেখালেন স্যামুয়েলস। আট বলে দুই ছয় আর একটি চারে তুলে নিলেন ১৭ রান।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে বল হাতে সানজামুল ইসলাম ও মুনাবীরা দুটি করে উইকেট নিয়েছেন।

দিনের দ্বিতীয় এই ম্যাচটিতে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নামা চিটাগং শুরু থেকেই ভুগেছে। উইকেট চারটি হারালেও, রানের চাকা ছিল ধীরগতির। ভাইকিংস বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে মাটি কামড়ে পড়েছিল সৌম্য সরকার-লুক রনচিরা। ওপেনার রনচি অবশ্য ব্যাটে ঝড় তোলার চেষ্টা করেছিলেন। তার ব্যাটেই দল পেয়েছে ৩১ রানের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস। তার পাঁচটি চার ও একটি ছয়ে সাজানো ইনিংসে খানিকটা হলেও কষ্ট ভুলে থাকার প্রেরণা খুঁজবে সমর্থকরা। এছাড়া ওপেনার সৌম্য সরকার দলের হয়ে ৩২ বলে সর্বোচ্চ ৩০ রানের ইনিংস খেলেছেন।

বল হাতে মোহাম্মদ নবী, ডোয়াইন ব্রাভো, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও রশিদ খান প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নিয়েছেন।